রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে সিলেটে করোনার বিশেষায়িত শহীদ ডা. শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল। ১০০ শয্যার এ হাসপাতালটিতে করোনা পজিটিভসহ চিকিৎসাধীন রোগী রয়েছেন ৮২ জন। আইসিইউর ১৪ শয্যার মধ্যে ১১ শয্যাতেই রোগী। এ অবস্থায় ভর্তিতে সতর্কতা অবলম্বন করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শুধু করোনা পজিটিভ রোগীকেই তারা ভর্তি করছেন। নেভেটিভ তথা উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীদের ভর্তি করা হচ্ছে না। তাদের অন্য সরকারি হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হতে আসা রোগীদের ভর্তি না করা প্রসঙ্গে হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক চয়ন রায় সমকালকে জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা করাটা উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীদের চেয়ে জরুরি। যেভাবে সবাইকে ভর্তি করা হচ্ছে, সেভাবে চললে সিরিয়াস রোগীদের একসময় ভর্তির জায়গা থাকবে না। সেজন্য শুধু পজিটিভ অর্থাৎ করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী ভর্তি করা হচ্ছে। করোনা উপসর্গ নিয়ে আসা রোগীদের সদর উপজেলার খাদিমপাড়ার ৩১ শয্যার হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। তিনি জানান, মঙ্গলবার হাসপাতালটিতে ৮২ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে পজিটিভ ৫১ জন ও উপসর্গ থাকা রোগী ৩১ জন।

এদিকে সিলেটে গত ২৪ ঘণ্টায় কোনো রোগী মারা না গেলেও আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৬ জন। গতকাল পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩০৩ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক ডা. সুলতানা রাজিয়া স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, সিলেটের চারটি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় ১৩৬ জন করোনা আক্রান্ত হন। এ নিয়ে বিভাগে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৭০০ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট জেলায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১২ জন। সবমিলিয়ে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩০৩ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ২৮৫ জন, সুনামগঞ্জে ৪ জন, হবিগঞ্জে ১৩ জন ও মৌলভীবাজারে একজন।

মন্তব্য করুন