মৌলভীবাজারের বড়লেখার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউপি কার্যালয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে উপজেলা প্রশাসনের তিন সদস্যের কমিটি। গতকাল শুক্রবার বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়।

তদন্ত সংশ্নিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বৈদ্যুতিক ত্রুটি, বিড়ি-সিগারেটের জ্বলন্ত অবশিষ্টাংশ বা বজ্রপাতের কারণে আগুনের সূত্রপাত হয়নি। তবে কী কারণে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল, তা নিশ্চিত হতে পারেনি তদন্ত কমিটি। কমিটির আহ্বায়ক বড়লেখার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুসরাত লায়লা নীরা প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন।

বড়লেখা ইউএনও শামীম আল ইমরান বলেন, প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গত রোববার সকালে দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ভবনে রহস্যজনক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের সেমিপাকা পাঁচটি কক্ষ, চেয়ারম্যানের কক্ষ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র, ডিজিটাল সেন্টার ও গ্রাম আদালতের কক্ষসহ ইউনিয়নের পাঁচটি কম্পিউটার ও গুরুত্বপূর্ণ সব নথি পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যায়।

ওই দিনই বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আল ইমরান সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুসরাত লায়লা নীরাকে আহ্বায়ক এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা উবায়েদ উল্লাহ খান ও ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার অনুপ কুমার সিংহকে সদস্য করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দেন। কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়।

ঘটনার দিন জেলা প্রশাসন থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক তানিয়া সুলতানাকে আহ্বায়ক এবং জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার রুহুল আমীনকে সদস্য সচিব করে সাত সদস্যবিশিষ্ট আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

মন্তব্য করুন