জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষায় রাজনৈতিক প্রভাব, প্রশ্নপত্র ফাঁস ও পছন্দের প্রার্থীকে সর্বোচ্চ নাম্বার দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন পরীক্ষায় অংশ নেওয়া তাপস চন্দ্র পাল নামের এক প্রার্থী।

গত ৩ জুন জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন পরীক্ষার্থী বেহেলী গ্রামের বাসিন্দা তাপস চন্দ্র পাল। তবে নিয়োগ পরীক্ষা স্বচ্ছতার সঙ্গে সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

জেলা প্রশাসকের কাছে করা অভিযোগে তাপস চন্দ্র পাল উল্লেখ করেছেন, গত ১ জুন বেহেলী উচ্চ বিদ্যালয়ে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় সংশ্নিষ্টরা একজন প্রার্থীকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেন। নিয়োগ পরীক্ষায় রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার করে পরীক্ষার আগেই প্রশ্নপত্র ফাঁস ও পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে অনিয়ম করা হয়েছে। মৌখিক পরীক্ষায় পছন্দের প্রার্থীকে সর্বোচ্চ নাম্বার দেওয়া হয়েছে। তাই এই নিয়োগ পরীক্ষার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেছেন তিনি।

বেহেলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতি রঞ্জন পুরকায়স্থ বলেন, অসুস্থ থাকায় নিয়োগ পরীক্ষার দিন আমি উপস্থিত ছিলাম না। নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়ম-দুর্নীতি হয়েছে বলে একজন প্রার্থী অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটিকে জানানো হয়েছে। কমিটি নিয়োগ দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছে মাত্র।

বেহেলী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ কমিটির সভাপতি ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সসীম রায় বলেন, নিয়োগ পরীক্ষায় কোনো অনিয়ম-দুর্নীতি হয়নি। স্বচ্ছতার সঙ্গে সবার উপস্থিতিতেই সবকিছু সম্পন্ন হয়েছে। পরীক্ষা নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ করা হয়েছে বলে শুনেছি। তবে নিয়োগপত্র দেওয়ার জন্য আমরা প্রধান শিক্ষককে অনুরোধ করেছি।

জামালগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহবুবুল কবীর বলেন, বিদ্যালয়টির পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ পরীক্ষায় কোনো অনিয়ম হয়নি।

মন্তব্য করুন