২৫০ শয্যা হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দেখা দিয়েছে। হাসপাতালে অক্সিজেন না পেয়ে বাইরে থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার কিনে দিতে হচ্ছে রোগীদের। ফলে একদিকে যেমন বেড়েছে ভোগান্তি, অন্যদিকে বেড়েছে ব্যয়। এদিকে দরিদ্র রোগীর স্বজনরা অক্সিজেন কিনতে না পারায় বেড়েছে মৃত্যুঝুঁকি। অভিযোগ উঠেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে অক্সিজেনসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা না পেয়ে রিতা বেগম (৪৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি বাহুবল উপজেলার মিরপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমানের স্ত্রী।

রিতা বেগমের ছোট ছেলে পাবেল মিয়া জানান, তার মাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও কোনো খোঁজখবরই নেননি চিকিৎসকরা। এদিকে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঘুরেও পাওয়া যায়নি অক্সিজেন। এক পর্যায়ে দুপুরে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

সরেজমিন দেখা যায়, হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রতিদিনই করোনার উপসর্গ নিয়ে ৫০ থেকে ৬০ জন রোগী আসছেন চিকিৎসা নিতে। এদের মধ্যে যে গুটিকয় করোনার রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাদেরও অভিযোগের শেষ নেই। অক্সিজেনসহ প্রয়োজন মতো পাশে পাচ্ছেন না ডাক্তার ও নার্সদের। এমনকি মূমূর্ষু রোগীদের জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার ধরনা দিয়েও মিলছে না অক্সিজেন।

করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা মাধবপুর উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের রহমত আলী জানান, সময়মতো অক্সিজেন পাচ্ছেন না। একেবারে সংকটময় মুহূর্তে ১৫ থেকে ২০ মিনিটের জন্য অক্সিজেন দেওয়া হলেও পরে তা খুলে নেওয়া হয়।

রঞ্জিত দেব নামে এক করোনা রোগী জানান, হাসপাতালে অক্সিজেন না পেয়ে বাইরের ফার্মেসি থেকে তার স্বজনরা অক্সিজেন সিলিন্ডার কিনে এনেছেন।

সদর আধুনিক হাসপাতালে ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক ডা. কায়সার রহমান বলেন, প্রয়োজনের তুলনায় আমাদের অক্সিজেন সংকট রয়েছে। তবে ইতোমধ্যে স্টোরকিপারকে অক্সিজেনের জন্য সিলেটে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন