স্থানীয় সরকার নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী নবীগঞ্জ উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে আগামী ২৮ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে উপজেলার ৫ নম্বর আউশকান্দি ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে সীমানা নির্ধারণ জটিলতা দেখিয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করায় নির্বাচন স্থগিত হওয়ার আশঙ্কায় তোলপাড় চলছে এলাকায়।\হজানা যায়, ২৮ ফেব্রুয়ারি আউশকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন বাদী হয়ে হাইকোর্টে বিচারপতি মুজিবুর রহমান ও কামরুল হোসাইনের আদালতে রিট পিটিশন করেন। তিনি সীমানা জটিলতা দেখিয়ে ওই ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিতের আবেদন করেন। এরপর আউশকান্দি ইউনিয়নের দ্বিঘর ব্রাহ্মণ গ্রামের সাধন সূত্রধর, আব্দুল আলী, ছমেদ উল্লাহ, সুশীল সূত্রধর, নাসির মিয়াসহ কয়েক জনের স্বাক্ষরসহ একটি আবেদন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠান।\হপরবর্তীকালে ওই ব্যক্তিরা আদালতে এফিডেভিটের মাধ্যমে জানান, তাদের স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। তারা এফিডেভিটে বলেন, ইউনিয়নের নির্বাচন বানচালের জন্য তাদের স্বাক্ষর জাল করে আবেদন করা হয়েছে।\হনবীগঞ্জ নির্বাচন কর্মকর্তা দেব শ্রীদাশ পার্লিন বলেন, আউশকান্দি ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত করার জন্য আনুষ্ঠানিক কোনো আদেশ আসেনি। উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।\হওই ইউনিয়নে যথাসময়ে নির্বাচন করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য গাজী শাহনেয়াজ মিলাদ ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম মন্ত্রণালয়কে জানান, দ্বিঘর ব্রাহ্মণ গ্রাম নিয়ে কোনো জটিলতা নেই।\হউপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহি উদ্দিন বলেন, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত চলছে।

মন্তব্য করুন