২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

সমকাল প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম বন্দরে কনটেইনারজট কমাতে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এনবিআর গত বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে আদেশ জারি করেছে। এতে বলা হয়, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের কার্যক্রম প্রতিদিন ২৪ ঘণ্টা চালু থাকবে। সাপ্তাহিক ছুটি ও অন্যান্য সরকারি ছুটির দিন ছাড়া সব কর্মদিবসে সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত আমদানি ও রফতানি পণ্য চালানের পরীক্ষণ, শুল্কায়ন ও খালাস কার্যক্রম চলমান থাকবে। কর্মদিবসের বাকি সময় পণ্যের খালাসসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কর্মব্যস্ততা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিয়োজিত রাখতে হবে।
আদেশে বলা হয়, শুল্কায়ন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত বন্দর কর্তৃপক্ষ, শিপিং এজেন্টসহ সব অংশীদারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সমন্বয় করে কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। সব ছুটির দিনে আমদানি ও রফতানি কার্যক্রম পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিয়োজিত রাখতে হবে। সাধারণ অফিস সময় ছাড়া অন্যান্য সময়ে কর্মব্যস্ততা অনুযায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবণ্টন নির্ধারণ করবেন কমিশনার। গত বৃহস্পতিবার থেকে এ আদেশ কার্যকর হয়েছে।
চট্টগ্রাম বন্দরে ২৪ ঘণ্টা দ্রুত পণ্য খালাসের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সম্প্রতি নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নির্দেশনা অনুযায়ী সব সেবা চালু রাখার প্রস্তুতিও প্রায় চূড়ান্ত রেখেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ ও কাস্টম হাউস।
এফবিসিসিআইর সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন সমকালকে বলেন, আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে গতি বাড়াতে তারা দীর্ঘদিন ধরেই চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের কার্যক্রম ২৪ ঘণ্টা পরিচালনার দাবি জানিয়ে আসছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যক্রম দিন-রাত খোলা রাখার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, সরকারের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এতে বন্দরে সেবার অনেক উন্নয়ন হবে। বন্দরে দ্রুত পণ্য খালাসে আমদানি ও রফতানি বাণিজ্য উল্লেখযোগ্য হারে বাড়বে। তবে এ জন্য বন্দরে ব্যাংক, ফ্রেইট ফরওয়ার্ডার্স, শিপিং এজেন্ট, ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপো, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টসহ সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠান ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখতে হবে।
দেশের জাতীয় রাজস্ব আয়ের ৩০ শতাংশের বেশি আসে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস থেকে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে ৩৬ হাজার ৭০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। এ বন্দরে রাজস্ব প্রবৃদ্ধির হার ১৭ দশমিক ৬৩ শতাংশ।