আড়াইহাজারে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা নদীতে ধরা হচ্ছে মা ইলিশ। এই ইলিশ বিক্রির জন্য উপজেলার মেঘনা-তীরবর্তী এলাকার তিনটি স্পটে বসানো হয়েছে অস্থায়ী হাট। ইলিশ ধরা ও বিক্রি বন্ধে উপজেলা মৎস্য অফিস অব্যাহতভাবে অভিযান চালালেও কাজে আসছে না।
সরেজমিন দেখা যায়, রাত ১০টা থেকে ভোর ৩টা পর্যন্ত গোপনে জাটকা ও মা ইলিশ ধরার জন্য আড়াইহাজার উপজেলার বিশনন্দী ইউনিয়নের বিশনন্দী, ফেরিঘাট, টেটিয়া ও দয়াকান্দা এলাকার মেঘনায় জেলেরা নৌকায় গিয়ে জাল ফেলছেন। তাদের জালে ধরা পড়ছে জাটকা ও ডিমওয়ালা ইলিশ। পরে নৌকাভর্তি ইলিশ পাইকারদের কাছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিক্রি করা হচ্ছে। পাইকাররা অস্থায়ী হাটে এসে মাছ নিয়ে যাচ্ছেন। সন্ধ্যার পর বসে এসব হাট। জাটকা ইলিশ কেজিপ্রতি দেড়শ' থেকে দুইশ' এবং বড় ইলিশ প্রতি কেজি চারশ' থেকে পাচঁশ' টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। জেলেরা জানান, এ সময় বেশি মাছ পাওয়া যায় বলে তাদের লাভের পরিমাণ বেশি হয়।
আড়াইহাজার উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) বলেন, আমরা নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছি। নিষেধাজ্ঞার পর থেকে এ পর্যন্ত ১০ লাখ মিটার জাল পোড়ানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন