নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় তিতাস গ্যাসের সঞ্চালন পাইপ ফেটে যাওয়ায় উপজেলার ১৫টি এলাকায় গত তিন দিন ধরে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছে লক্ষাধিক মানুষ। উপজেলার ত্রিবেনী ব্রিজটি পুনঃসংস্কার করার সময় শ্রমিকরা গ্যাস সঞ্চালনের পাইপ ফাটিয়ে ফেলে। খবর পেয়ে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ প্রাথমিকভাবে পাইপের মুখ বন্ধ করে দিয়ে আসে। এতে করে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে সাধারণ মানুষ দুর্ভোগে পড়ে। অনেকে প্রথমদিন ঘটনাটি বুঝতে না পেরে হোটেল-রেস্তোরাঁ থেকে খাবার কিনে খায়। কিন্তু ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর বিকল্প ব্যবস্থায় রান্না করেছে তারা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ত্রিবেনী ব্রিজের পুনঃসংস্কার কাজ চলাকালীন শ্রমিকরা গ্যাস সঞ্চালনের পাইপ ফাটিয়ে ফেলে। এরপর ধীরে ধীরে উপজেলার দক্ষিণাংশের গ্যাস সরবরাহ কমতে থাকে। একপর্যায়ে সরবরাহ বন্ধ হয়ে গ্যাস সংকটে ভুগতে থাকে জনসাধারণ। অন্যদিকে ফেটে যাওয়া পাইপ থেকে অনবরত গ্যাস বের হতে দেখে আশপাশের এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে খরব পেয়ে তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তারা এসে ফেটে যাওয়া গ্যাসপাইপের মুখ বন্ধ করে দেন। গত বৃহস্পতিবার থেকে গ্যাস সংকট দেখা দিলেও শুক্রবার মধ্য রাত থেকে পুরো উপজেলায় এই সংকট তীব্রতর হতে থাকে। এতে করে শুক্রবার সকালে গ্যাস সংকটে অনেকে হোটেল কিংবা রেস্তোরাঁ থেকে খাবার সংগ্রহ করেন। অনেকে সকাল থেকে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে মাটির চুলা ও স্টোভ ব্যবহার শুরু করেন। দুপুরে পুরো বন্দরবাসীর রান্না করার একমাত্র ব্যবস্থা হিসেবে মাটির চুলা কিংবা স্টোভের ওপর নির্ভর করতে হয়। এসব বিকল্প পদ্ধতিতে রান্না করতে অনেককেই লাকড়ি কিংবা কেরোসিন তেলের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে। উপরন্তু মাটির চুলা কিংবা স্টোভ কিনতে হচ্ছে।
বন্দর ছালেহনগর এলাকার জোবেদা বেগম বলেন, গ্যাসের পাইপ ফেটে গ্যাস বন্ধ হয়ে গেছে। তাই বাধ্য হয়ে মাটির চুলায় রান্না করছি। তবে লাকড়ি নিয়ে আরেকটা সমস্যা দেখা দিয়েছে। তাই নাতিকে দিয়ে গাছ থেকে শুকনো ডাল পেড়ে সেগুলো জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করছি।
এলাকার রোখসানা বেগম জানান, গ্যাস সংকটের কারণে বাধ্য হয়ে মাটির চুলাতে রান্না করতে হচ্ছে। মাটির চুলাতে রান্না করার অভ্যাস নেই। তবে এখন গ্যাস সমস্যার কারণে রান্না করতে হচ্ছে। কিন্তু এভাবে কতদিন চলতে হবে। তাছাড়া বাজার থেকে ৪০০ টাকার লাকড়ি কিনে এনেছি।
বাবুপাড়া এলাকার কাকলী বেগম জানান, গ্যাস সংকটের কারণে রান্না করতে পারছি না। তাই সকালে হোটেল থেকে খাবার কিনে এনেছি। কিন্তু এভাবে আর কতদিন চালানো যায়। তাই দুপুরে স্টোভ কিনেছি।
ত্রিবেনী ব্রিজের সংস্কার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে সেখানে কাউকে দেখা যায়নি। আশপাশের এলাকাবাসী জানান, বৃহস্পতিবার গ্যাস সরবরাহের সঞ্চালন পাইপ ফাটিয়ে ফেলার পর থেকে তারা লাপাত্তা। এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে তিতাসের লোকজন এসে ফাটা পাইপের মুখ বন্ধ করে গেছেন। তারা বলেছেন, শিগগিরই তারা পাইপ মেরামত করে দেবেন।
বন্দরে সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নান সরকার বলেন, গ্যাস সঞ্চালনের পাইপ ফেটে যাওয়ার বিষয়টি তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তারা দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন