আড়াইহাজার

আওয়ামী লীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত

পৃথক ঘটনায় আহত ৫

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৮      

আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

আড়াইহাজারে আওয়ামী লীগের দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে এক যুবক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ইউপি সদস্যসহ  ১০ জন। শনিবার রাতে উপজেলার কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের চরাঞ্চলের মধ্যারচর গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে বর্তমানে ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থল ও এর আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নিহত সুজন মিয়া মধ্যারচর গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে।

শনিবার সন্ধ্যার পর মধ্যারচর গ্রামের যুবলীগ নেতা বাবুল এবং আওয়ামী লীগ নেতা ও কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের সদস্য লিটন মিয়ার মধ্যে মেঘনা নদীতে মাছ ধরার চাঁই পাতাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। প্রথমে বাবুল, হযরত ও তার সহযোগীরা মাছ ধরার চাঁই দিয়ে মেঘনা নদীতে মাছ ধরতে যায়। এতে ইউপি সদস্য লিটনের অনুসারী সুজনসহ ২০-২৫ জনের একটি দল বাধা দেয়। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে উভয়  পক্ষের লোকজন দেশি অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে সুজন, বাবুল, লিটন, আছমা, হযরত আলী, আবুল হাসানসহ ১১ জন আহত হয়। তাদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সুজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মোশারফ হোসেন জানান, সুজনের গায়ে ৩টি টেঁটা বিদ্ধ হয়েছে। থানার ওসি মুহাম্মদ আবদুল হক জানান, সুজনের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে আড়াইহাজারে জমি নিয়ে বিরোধে দু'পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার রাতে আড়াইহাজার পৌরসভার ঝাউগড়া এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে শনিবার মোতালিব নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।