আশুলিয়ায় ১২ ইটভাটায় অভিযান

প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার

আশুলিয়ায় তুরাগ নদের তীরে গড়ে ওঠা ইটভাটায় অভিযান চালিয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার সকালে ওই এলাকার ১২টি ইটভাটায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৭টি ইটভাটাকে মোট ৯৫ লাখ টাকা জরিমানা এবং তিনটি ইটভাটাকে সম্পূর্ণ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইংয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমদের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রমাণ পান, কোনো ইটভাটারই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র এবং কোনো প্রকার অনুমোদন নেই। ইটভাটাগুলোতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়নি। এ ছাড়া আইনে রয়েছে, নদী থেকে কমপক্ষে এক কিলোমিটার দূরে ইটভাটা স্থাপন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে তা অনুসরণ করা হয়নি। ফলে ভ্রাম্যমাণ আদালত রাজু ব্রিকসকে ১০ লাখ, মেসার্স আশরাফ ব্রিকস-১-কে ১০ লাখ, মেঘনা ব্রিকসকে ২০ লাখ, এসএস ব্রিকসকে ২০ লাখ, মর্ডান ব্রিকসকে ১১ লাখ, স্টাইল ব্রিকসকে ১১ লাখ, সুরমা ব্রিকস-১-কে ১৩ লাখ টাকা জরিমানা করেন।

এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে এমএসবি ব্রিকসের ম্যানেজার পালিয়ে যান। পরে বুলডোজার দিয়ে ওই ভাটাটিসহ মেসার্স আল-আশরাফ ব্রিকস-২ এবং সুরমা ব্রিকস-২-এর ইটের প্রাচীর ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমদ বলেন, এ অঞ্চলের অধিকাংশ ইটভাটাই অনুমোদনবিহীন। ভাটা মালিকরা লাইসেন্স না করেই ইটভাটা স্থাপন করেছেন। তাই পরিবেশ রক্ষার্থে পর্যায়ক্রমে সব ভাটায় অভিযান পরিচালনা করা হবে। অভিযানকালে পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আমিরুল ইসলাম খান, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক মিহির লাল সরদার, সমর কৃষ্ণ দাস, মো. শরিফুল ইসলামসহ র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।