ধামরাইয়ে শ্রমিক নিহতের গুজবে সড়ক অবরোধ

প্রকাশ: ২০ মে ২০১৯

ধামরাই প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ের বাথুলি এলাকায় শ্রমিকবাহী একটি বাস সড়ক বিভাজনের ওপর উঠে প্রায় ৩০ জন আহত হয়েছে। কেউ নিহত না হলেও একজনের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক প্রায় তিন ঘণ্টা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন উত্তেজিত শ্রমিকরা। বিক্ষোভকালে তারা কারখানার বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে সমাধানের দাবি জানান। অবরোধের কারণে মহাসড়কে প্রায় ২০ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। গতকাল রোববার সকাল ৭টার দিকে রাইজিং গ্রুপের মাহমুদা এট্রির্চ লিমিটেড নামে পোশাক কারখানার শ্রমিকরা এ অবরোধ করেন।

শ্রমিকরা জানান, রোববার ভোরে কাজে যোগ দিতে মানিকগঞ্জের রাজিবপুর থেকে শ্রমিকরা কারখানার বাসে রওনা দেন। শ্রমিকবাহী বাসটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলি বাসস্ট্যান্ডে আকস্মিকভাবে সড়ক বিভাজনের ওপর উঠে যায়। এতে বাসের ৩০ শ্রমিক আহত হন। তাদের উদ্ধার করে কারখানায় নেওয়া হয়। তবে কারাখানা কর্তৃপক্ষ তাদের দ্রুত হাসপাতালে না পাঠিয়ে কারখানার নিজস্ব চিকিৎসকের অপেক্ষায় থাকে। এতে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে শ্রমিকদের চাপের মুখে আহতদের হাসপাতালে পাঠাতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে এক শ্রমিক নিহতের গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কারখানা থেকে বের হয়ে মহাসড়কে নেমে আসেন শ্রমিকরা। তারা প্রায় তিন ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকেন। এতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়েন মহাসড়কে আটকা পড়া যানবাহনের যাত্রীরা।

শ্রমিকদের অভিযোগ, তাদের কারখানায় ভালো চিকিৎসক ও অ্যাম্বুলেন্স নেই। কেউ অসুস্থ হলে ছুটি দেওয়া হয় না। কারণে-অকারণে শ্রমিকদের নির্যাতন করা হয়। অতিরিক্ত ওভার টাইম করানো হয়, কিন্তু সঠিকভাবে মজুরি দেওয়া হয় না। এসব সমস্যা সমাধানের দাবি জানান তারা।