জাবিতে হল নির্মাণের স্থান পুনর্নির্ধারণসহ ৭ দাবি

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০১৯      

জাবি সংবাদদাতা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অপরিকল্পিতভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ এবং প্রাণ-প্রকৃতি ও পরিবেশ ধ্বংস না করে কার্যকর উন্নয়নের দাবি জানিয়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যমঞ্চ। এ সময় তারা নতুন হল নির্মাণের স্থান পুনর্নির্ধারণসহ সাতটি দাবি জানায়। বুধবার দুপুর আড়াইটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের 'নতুন কলা ও মানবিকী অনুষদ' ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যমঞ্চের আয়োজনে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমান এসব দাবি জানান।

দাবিগুলো হলো- হল নির্মাণের স্থান পুনর্নির্ধারণ করে নির্মাণ কাজ অব্যাহত রাখা, মহাপরিকল্পনা জনপরিসরে প্রকাশ, ক্যাম্পাসের প্রাকৃতিক পরিবেশ, ভূ-কাঠামো, প্রাণ-প্রকৃতি ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় প্রশাসনের সুস্পষ্ট ঘোষণা, প্রতিটি বিভাগের জন্য আলাদা ভবন নির্মাণ না করে প্রয়োজনে অনুষদ ভবনগুলোকে ঊর্ধ্বমুখে সম্প্রসারণ, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে লাইব্রেরি ভবন নির্মাণ কাজ শেষ করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সংখ্যার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বিভাগ, একাডেমিক ভবন, শ্রেণিকক্ষ, ল্যাবও অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করা যাবে- এমন সমন্বিত পরিকল্পনাসহ একই নকশার অনুকরণ না করে দেশবরেণ্য স্থপতিদের দিয়ে নির্মিতব্য ভবনগুলোর স্বতন্ত্র নকশা তৈরি করা।

সংবাদ সম্মেলনে দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, আমরা চাই বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষার পরিবেশ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ-প্রকৃতি ও জীববৈচিত্র্য অক্ষুণ্ণ থাকুক। বিশ্ববিদ্যালয়কে যেন অপরিকল্পিত ও অবিবেচনাপ্রসূত সিদ্ধান্তের খেসারত দিতে না হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. জামাল উদ্দিন, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয়, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট (মার্কসবাদী) জাবি শাখার সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদ প্রমুখ।