নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলা সাক্ষ্য দিলেন পা হারানো চন্দন ও রতন

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০১৯

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলা মামলায় আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন হামলায় দুই পা হারানো চন্দন শীল, রতন দাসসহ চারজন। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক শাহ মোহাম্মদ জাকির হাসান তাদের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। অপর সাক্ষীরা হলেন বোমা হামলায় আহত রতন দাস, খবির আহমেদ ও প্রত্যক্ষদর্শী রফিক। এ নিয়ে মামলাটিতে সাতজন সাক্ষ্য দিলেন।

আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুর রহিম বলেন, ২০০১ সালের ১৬ জুন চাষাঢ়ায় আওয়ামী লীগ অফিসে বোমা হামলায় ২০ জন নিহত হন। ঘটনার সময় এমপি শামীম ওসমানের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত সচিব চন্দন শীল, যুবলীগ কর্মী রতন দাস ও খবির আহমেদ আওয়ামী লীগ অফিসে ছিলেন। বোমা হামলায় রতন ও চন্দন শীল পা হারান। শামীম ওসমান ও খবির আহমেদসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন। আগামী ২১ আগস্ট মামলার পরবর্তী সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আব্দুর রহিম আরও জানান, বোমা হামলার পরের দিন আওয়ামী লীগ নেতা খোকন সাহা নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় দুটি মামলা করেন। এরমধ্যে একটি হত্যা মামলা, অন্যটি বিস্ম্ফোরক আইনের মামলা। সাক্ষ্য গ্রহণের সময় মামলার ৬ আসামির মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু (জামিনে) ও শাহাদাৎ উল্লাহ জুয়েল উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া আসামি আনিসুল মোরসালিন ও মুহিবুল মুত্তাকিন ভারতের কারাগারে বন্দি রয়েছে। মামলার অন্যতম আসামি হুজি নেতা মুফতি হান্নানের আরেক মামলায় ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। ওবায়দুল্লাহ নামে আরেক আসামি পলাতক রয়েছে।