বিদেশে লোক পাঠানোর নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০১৯

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জের ঘিওরে বিদেশ পাঠানোর নামে ভুয়া বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে মাদারীপুরের শিবচরে স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার শিবচর উপজেলার বাংলাবাজার এলাকা থেকে ভুক্তভোগীদের সহায়তায় তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন মুন্সীগঞ্জ জেলার মুক্তারপুর গ্রামের বারেক মুনশীর ছেলে বাশার মুনশী ও তার স্ত্রী হাসু বেগম।

ভুক্তভোগীরা জানান, আকর্ষণীয় বেতনে বিদেশে শ্রমিক নিয়োগ করা হবে- দর্শনীয় স্থানগুলোতে এমন বিজ্ঞপ্তি প্রচার করে লোকজনকে আকৃষ্ট করত প্রতারক চক্র। এরপর প্রার্থীদের বিদেশে পাঠানোর জন্য সাক্ষাৎকার নেওয়া হতো। পরে তাদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে এলাকা ছেড়ে পালাত চক্রটি। অন্য জেলায় গিয়েও একই কায়দায় প্রতারণা করাই ছিল তাদের মূল পেশা। মামলার বাদী আবুল হোসেন জানান, বিদেশে লোক পাঠানোর আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপন দেখে তিনি বাশারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এর পর ওমানে পাঠানোর জন্য তার কাছ থেকে ৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা নেন বাশার মুনশী। তার মতো অর্ধশত নারী-পুরুষকে ওমানে পাঠানোর জন্য এলাকা থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে গা ঢাকা দেন। চক্রের হোতা বাশার মুনশী মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার শ্রীবাড়ী গ্রামে আইয়ুব আলীর বাড়ি ভাড়া নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করেছিলেন। ওমানে পাঠানোর নামে সম্প্রতি জেলার ঘিওর ও শিবালয় উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৪৩ জনের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। গত রোববার তাদের ভিসা দেওয়ার কথা থাকলেও এর দু'দিন আগেই বাসার মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায় বাশার মুনশী। পরে ভুক্তভোগীরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে বুধবার মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার বাংলাবাজার এলাকায় তাদের আটক করেন। পরে পুলিশে সোপর্দ করা হয় তাদের।

ঘিওর থানার ওসি আশরাফুল আলম জানান, গ্রেফতারের সময় বাশারের কাছ থেকে ১টি কম্পিউটার, ৫টি মোবাইল, ২৪টি পাসপোর্ট, ১৯টি মোবাইল সিম, ফোন ও সাড়ে ৮ লাখ টাকা উদ্ধার হয়। প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।