কালীগঞ্জে স্টূ্ক্র ড্রাইভার দিয়ে গৃহবধূকে জখম

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট ২০১৯

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

গাজীপুরের কালীগঞ্জে পরিবার পরিকল্পনার মোক্তারপুর ইউনিয়ন পরিদর্শক মো. ওবায়দুল্লাহ স্ট্ক্রূ ড্রাইভার দিয়ে কল্পনা রানী ঘোষ নামে এক গৃহবধূকে এলোপাতাড়ি জখম করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে পরিবারের লোকজন ওই গৃহবধূকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাত আনুমানিক সোয়া ১টার দিকে উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের কালী ঘোষের বাড়িতে। ওই কর্মকর্তা মানসিকভাবে অসুস্থ বলে জানা গেছে। অভিযুক্ত ওবায়দুল্লাহ মোক্তারপুর ইউনিয়ন পরিবার পরিকল্পনার পরিদর্শক (এফটিআই) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাদেকুর রহমান।

ঘটনার খবর পেয়ে গতকাল শনিবার কালীগঞ্জ থানা পুলিশ ওবায়দুল্লাহকে বাড়ি থেকে আটক করে। পরে তার বড় ভাইয়ের জিম্মায় দেওয়া হয়।

গৃহবধূর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মোক্তারপুর গ্রামের মৃত আব্দুল আউয়ালের ছেলে ওবায়দুল্লাহ শুক্রবার রাত আনুমানিক সোয়া ১টার দিকে পার্শ্ববর্তী রামচন্দ্রপুর গ্রামে ঘোষপাড়া গিয়ে নয়ন ঘোষ ও নিতাই ঘোষের বাড়িতে গিয়ে আমাকে বাঁচাও বঁ?াচাও বলে ঘরের দরজা ধাক্কাধাক্কি করেন। তারা ঘরের দরজা না খুললে পার্শ্ববর্তী সুকুমার ঘোষের বাড়িতে গিয়ে 'আমাকে মেরে ফেলবে আমাকে বাঁচান' এই বলে চিৎকার করতে থাকেন। তখন সুকুমার ঘরের দরজা খুলে তাকে ঘরের ভেতর বসতে বললে তিনি রুমে ঢুকে অপর রুমে থাকা সুকুমারের মেয়ে কল্পনা রানী ঘোষকে জাপটে ধরে রুমের ভেতর নিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। এরপর ওই গৃহবধূর ওপর উপর্যুপরি নির্যাতন ও স্ট্ক্রূ ড্রাইভার দিয়ে মাথা, চোখ, ঘারসহ এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবু বকর মিয়া বলেন, ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ করেনি। ওবায়দুল্লাহর পরিবার জানায়, তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ। চিকিৎসার জন্য তার ভাইয়ের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

থানায় আটক ওবায়দুল্লাকে গৃহবধূ জখম করার কারণ জিজ্ঞেস করলে কোনো কথা বলেননি।