ছাত্রলীগের একই সিন্ডিকেট জড়িত

রূপগঞ্জে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের আগে গার্মেন্ট শ্রমিক গণধর্ষিত

প্রকাশ: ১৫ জানুয়ারি ২০২০

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনার আগে আরেক গার্মেন্ট শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। দুটি ঘটনার আসামিরাই তারাব পৌরসভা ছাত্রলীগের বহিস্কৃত সহসভাপতি আবু সুফিয়ানের সঙ্গী-সাথি। ছাত্রলীগের এ সিন্ডিকেট এলাকায় এখন মূর্তিমান আতঙ্ক। জানা যায়, ২০১৯ সালের ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রূপসী নিউ মডেল স্কুলমাঠে মেলার আয়োজন করা হয়। ওই মেলায় বেড়াতে আসা মৈকুলী এলাকার অ্যারেস্টা ফ্যাশন কেয়ার গার্মেন্টের দুই শ্রমিককে জোর করে তুলে নিয়ে যায় উপজেলার রূপসী প্রধানবাড়ী এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে আকাশ, ইমান আলীর ছেলে ইসমাইল প্রধান, ওয়াজেদ আলীর ছেলে আনিছুর রহমান ও লাইছউদ্দিনের ছেলে হাবুসহ বেশ কয়েকজন। এরা সবাই আবু সুফিয়ান সিন্ডিকেটের সদস্য।

তারা রূপসী প্রধানবাড়ী বালুর মাঠে নিয়ে ওই দুই গার্মেন্টকর্মীর মধ্যে একজনকে গণধর্ষণ করে এবং আরেকজন দৌড়ে মসজিদের ছাদে আশ্রয় নেয়। এ ঘটনায় ধর্ষিতা থানায় মামলা করেন। ওই ঘটনায় আকাশ, ইসমাইল ও আনিছুরকে গ্রেপ্তার করলেও অভিযুক্ত হাবুসহ অন্যরা এখনও পলাতক।

গত ৯ জানুয়ারি আবু সুফিয়ান, তৌসিফ, আফজাল, তানভীরসহ বেশ কয়েকজন স্থানীয় একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রীকে জোর করে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে দু'দিন আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় গত রোববার আবু সুফিয়ানসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদের মধ্যে তৌফিক ও আফজাল ওই দিনই নারায়ণগঞ্জ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

এ নিয়ে এলাকাবাসী বিক্ষোভ, মানববন্ধন, সড়ক অবরোধ করলে উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি থেকে আবু সুফিয়ানকে বহিস্কার করা হয়।

রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল হাসান বলেন, এরই মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রিমান্ডে দু'জনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।