তিন স্থানে চাচা-ভাতিজিসহ ৪ জনের লাশ উদ্ধার

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

সিরাজগঞ্জ সদর, পাবনার চাটমোহর ও লালমটিরহাটে চাচা-ভাজিতিসহ ৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

সিরাজগঞ্জ :সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার চর ছোনগাছা থেকে শনিবার চাচা ও ভাতিজির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতরা হলেন চর ছোনগাছা গ্রামের ওমর আলীর মুন্সির ছেলে আবদুর রহিম ও রহিমের ভাই শাহআলমের মেয়ে হাওয়া খাতুন। হাওয়া খাতুনের বাবা শাহ আলম বলেন, রাত ১২টার সময় আমার মামাতো ভাই আবদুর রহিমের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘুম থেকে জেগে উঠি। এ সময় বাড়ির সবাই যখন কান্নাকাটি করছিল, এরই ফাঁকে আমার মেয়ে হাওয়া খাতুন বাড়ির রান্নাঘরের মধ্যে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। সদর থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) নুরুল ইসলাম বলেন, একই রাতে চাচা ও ভাতিজির মৃত্যুর রহস্য উদ্ঘাটনে মৃতদেহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, তাদের নিজেদের মধ্যে প্রেমঘটিত বিষয় না থাকলেও দু'জনেরই পৃথক সম্পর্ক ছিল। নিজেদের অমতে দু'জনেরই আলাদা আলাদা স্থানে বিয়ে ঠিক হওয়ায় উভয়ই আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারে বলেও এলাকাবাসীর ধারণা।

চাটমোহর (পাবনা) :পাবনার চাটমোহর উপজেলার জাবরকোল সড়কের ওপর শনিবার ভোরে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার গুনাইগাছা ইউনিয়নের জাবরকোল এলাকায় চাটমোহর-মান্নাননগর সড়কের ওপর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা রাস্তার ওপর রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ব্যাপারে চাটমোহর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, মাথায় ও হাতে আঘাতের চিহ্ন দেখে প্রাথমিকভাবে মনে  হচ্ছে, রাস্তা পার হওয়ার সময় কোনো গাড়ি তাকে ধাক্কা দিয়েছে। মৃত ওই ব্যক্তির পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

লালমনিরহাট :লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা ইউনিয়নের গোবর্ধন সলেডি স্প্যার বাঁধ এলাকার তিস্তা নদী থেকে শনিবার সকালে অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সকালে তিস্তা নদীর পানির স্রোতে ভেসে আসা অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীর লাশ গোবর্ধন সলেডি স্প্যার বাঁধে আটকে যায়। খবর পেয়ে আদিতমারী থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে পানির প্রচণ্ড স্রোতের কারণে ব্যর্থ হয়। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এসে লাশ উদ্ধার করে। লাশটি কয়েকদিন ধরে পানিতে থাকায় চেহারা বিকৃত হয়, ফলে স্থানীয়রা কেউ পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি। আদিতমারী থানার এসআই মঞ্জু আলম লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।