ঈশ্বরদী পৌরসভার প্রধান সড়ক বেহাল

দুই বছরেও সংস্কারের উদ্যোগ নেই

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৮      

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী (পাবনা)

প্রথম শ্রেণির ঈশ্বরদী পৌরসভার প্রধান সড়ক স্টেশন রোডের বেহাল অবস্থা হলেও গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম এ সড়ক সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি গত দু'বছরেও।

ঈশ্বরদী শহরে রেলগেট ট্রাফিক মোড় থেকে বাজারের চাঁদ আলী পর্যন্ত সড়কটির অধিকাংশ স্থানের পিচ, খোয়া, পাথর উঠে ছোট-বড় অসংখ্য গর্ত ও খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। ভাঙাচোরা এই সড়কে পথচারীদের আরও ভোগান্তি বাড়িয়েছে বৃষ্টির জমে থাকা পানি ও কাদা। শুধু এ রাস্তাই নয়, পৌরসভার অধিকাংশ রাস্তা এখন ভাঙাচোরা ও ক্ষতবিক্ষত। সড়কগুলো নিয়মিত সংস্কার না করায় ভেঙে ভেঙে অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এসব সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে দুর্ভোগে পড়ছেন পৌরবাসী। প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা।

গতকাল শনিবার শহর ঘুরে দেখা গেছে, শহরের আলহাজ ট্রাফিক মোড় থেকে রেলগেট, স্টেশন রোড, ফকিরের বটতলা থেকে ঈদগাহ-আমবাগান হয়ে কলেজ রোডের স'মিলের মোড়, চাঁদ আলী মোড় থেকে ডায়াবেটিস হাসপাতাল, দরিনারিচা সড়ক, বিমানবন্দর সড়কে প্রয়াত কমরেড জসিম মণ্ডলের বাড়ির সামনে থেকে বাবুপাড়া খলিলের মোড়সহ সাত-আটটি সড়কের অবস্থা খুবই খারাপ। এসব সড়কের মধ্যে শহরের রেলগেট হয়ে বাজার হয়ে চাঁদ আলী মোড় পর্যন্ত সড়কটির অবস্থা সবচেয়ে বেশি খারাপ। বাজারের কাছাকাছি সোনালী ব্যাংকের সামনে থেকে বাজারের ২ নম্বর গেট পর্যন্ত রাস্তা ভাঙাচোরার কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে প্রতিদিন। ঈশ্বরদীর পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের জায়গা বর্তমানে কাদাপানি ও ময়লায় পরিপূর্ণ। বাজার এলাকায় যানজটের এটিও বড় কারণ বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকার বাসিন্দারা। স্থানীয় সামসাদ আহমেদ চুন্নু বলেন, পৌরসভার সড়কের, বিশেষ করে বাজার এলাকার রাস্তার যে দশা, তাতে যে কোনো সময় অটোরিকশা উল্টে যাওয়ার ভয় নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। বাজারের মিষ্টি ব্যবসায়ী তাপস কুমার সাহা জানান, রাস্তা ভাঙাচোরার কারণে বাজারে লোকজনও আসে কম, ফলে তাদের ব্যবসায় এখন অনেকটা মন্দা ভাব।

ঈশ্বরদী পৌরসভার প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এই পৌরসভায় মোট ১৩২ দশমিক ৩৮ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। এর মধ্যে বিটুমিন দেওয়া সড়ক ৭৪ দশমিক ৭৬ কিলোমিটার, সিসি সড়ক ৩ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার ও ডব্লিউবিএম সড়কের পরিমাণ ২ দশমিক শূন্য ৭ কিলোমিটার। পাকা ও কাঁচা সড়ক রয়েছে ১৮ দশমিক ৫০ কিলোমিটার। পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আউয়াল জানান, শহরের অধিকাংশ সড়ক চলাচলের উপযোগী করে তোলার চেষ্টা করা হচ্ছে। ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু জানান, পৌর এলাকার সব রাস্তা সংস্কার ও কাঁচা রাস্তা পাকাকরণের জন্য 'তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নীতকরণ প্রকল্পে'র (ইউজিআইআইপি) আওতায় এরই মধ্যে কাজ শুরু করা হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় অর্থও বরাদ্দ পাওয়া গেছে। শহরের প্রধান কয়েকটি সড়ক প্রশস্তকরণ ও ফুটপাত তৈরির জন্য একটি পরিকল্পনাও বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, এ বছরের মধ্যে শহরের সব ভাঙা রাস্তা সংস্কার করা হবে।