সংবাদ সংক্ষেপ

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট ২০১৯

উলিপুরে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার
উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক অজ্ঞাত ব্যক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের নাগড়াকুড়া টি-বাঁধ এলাকায় তিস্তা নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার রাতে নাগড়াকুড়া টি-বাঁধ এলাকায় তিস্তা নদীতে অর্ধগলিত একটি লাশ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয় জনতা। রাতেই পুলিশ সেটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। শনিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়। থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, লাশটি অর্ধগলিত হওয়ায় পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পাবনায় ফেনসিডিলসহ আটক ২
পাবনা অফিস

পাবনা সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২শ' বোতল ফেনসিডিলসহ দু'জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত জহুরুল ইসলাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার ও সেলিম রেজা একই উপজেলার মবারক টিকরী গ্রামের বাসিন্দা। পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হক জানান, শুক্রবার রাতে পাবনা-ঈশ্বরদী মহাসড়কের গাঁতী আটমাইল মেসার্স হাকিম জুট মিলের সামনে যানবাহনে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় অটোরিকশা থেকে দু'জন নেমে দৌড়ে পালায়। অপর দু'জন জহুরুল ইসলাম ও সেলিম রেজাকে ফেনসিডিলসহ আটক করা হয়।

সাংবাদিককে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সভা
চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

সাংবাদিক রেজাউল করিম প্লাবনকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়েছেন কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার সাংবাদিকরা। শুক্রবার রাতে প্রেস ক্লাব চিলমারীর সভাকক্ষে প্রতিবাদ সভা চলাকালে সাংবাদিক রেজাউল করিম প্লাবন জানান, ০১৯৯৮৪২৯৮১৪ মোবাইল নম্বর থেকে মাসুম বিল্লাহ পরিচয় দিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এ ব্যাপারে মতিঝিল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক নাজমুল হুদা পারভেজ, নজরুল ইসলাম সাবু, গোলাম মাহবুব, মামুন অর রশিদ, এসএম নূরুল আমিন সরকার, জিয়াউর রহমান, সাওরাত হোসেন সোহেল, রিয়াদুল ইসলাম বাবু, আ. লতিফ মেহেদী, সিদ্দিকুল ইসলাম খোকন প্রমুখ।

কৃষকদের মধ্যে ধানের চারা বিতরণ
গাইবান্ধা প্রতিনিধি

বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে গাইবান্ধার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষিদের মধ্যে ধানের চারা এবং উন্নত জাতের ধানবীজ বিতরণ করা হচ্ছে। এই কর্মসূচির আওতায় জেলায় ৯৭৬ কৃষককে ৫ কেজি করে ধানবীজ এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ছয় হাজার কৃষককে এক বিঘা জমির প্রয়োজনীয় ধানের চারা দেওয়া হচ্ছে। সাম্প্রতিক বন্যায় জেলায় প্রায় সাত হাজার হেক্টর জমির আমন বীজতলা নষ্ট হয়েছে। এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমন ধানের চারা এবং বীজ বিতরণ গ্রহণ করা হচ্ছে। এবার জেলায় আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক লাখ ২৩ হাজার ৬৭ হেক্টর।