ধামইরহাটে জমি নিয়ে বিরোধে যুবক নিহত

প্রকাশ: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯      

নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার খেলনা ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত যুবক আতিয়ার রহমানের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত আতিয়ার দেবীপুর গ্রামের সাইজুদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের চাচাতো ভাই আবদুল রশিদ বাদী হয়ে ২৭ জনকে আসামি করে রোববার সকালে থানায় হত্যা মামলা করেন। পুলিশ দুপুরে মামলার আসামি সালেহা বেগমকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

দেবীপুর গ্রামের একটি জমির মালিকানা নিয়ে ওই গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের সঙ্গে একই গ্রামের সাইজুদ্দিনের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শুক্রবার রাতে ওই জমিতে আবু বক্কর সিদ্দিক ও তার ভাতিজা ধানের বীজতলা তৈরি করতে গেলে সাইজুদ্দিন ও তার লোকজনের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডা সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষ লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের ১১ জন আহত হন।

আহতরা হলেন- আবু বক্কর সিদ্দিক, জিয়াউর রহমান, আইয়ুব আলী, ইয়াকুব আলী, আবদুল হামিদ, আতিয়ার রহমান, আনোয়ার হোসেন, সাইজুদ্দিন, সারোয়ার হোসেন, সামুদ্দিন ও রাবেয়া বেগম। এদের মধ্যে আবু বক্কর, জিয়াউর রহমান, আতিয়ার রহমান, আনোয়ার হোসেন ও সাইজুদ্দিনকে রাজশাহী মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আবু বক্করের ছেলে বাদী হয়ে ১৫ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করলে পুলিশ সাইজুদ্দিনের স্ত্রী ও নিহত আতিয়ারের মা আফরোজা বুলু ও বোন শাহানাজ বেগমকে গ্রেপ্তার করে।

ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাকিরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ একজনকে আটক করে হাজতে পাঠিয়েছে। বাকি আসামিদের ধরার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।