নওগাঁ

৬ বিঘা জমির বীজতলা নষ্ট করল দুর্বৃত্তরা

২শ বিঘা জমির চাষাবাদ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা

প্রকাশ: ২২ জানুয়ারি ২০২১

নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁর পোরশা উপজেলার ঘাটনগর ইউনিয়নে দুর্বৃত্তরা তিনটি ফসলের মাঠে মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক দিয়ে প্রায় ৬ বিঘা জমির বোরো ধানের বীজতলা নষ্ট করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে করে ওই এলাকার ১৬ জন কৃষকের প্রায় ২শ বিঘা জমিতে বোরোর চাষাবাদ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সময়মতো চারা সংগ্রহ করতে না পারলে ওই জমিতে ধান রোপণ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন ভুক্তভোগী কৃষকরা। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ঘাটনগর ইউনিয়নের দেউপুরা, সুতলী ও দেউপুরা মাঠে দেউপুরা, সুতলী, ধামানপুর ও সোমনগর গ্রামের আব্দুল মালেক শাহ্‌, মোস্তাফিজুর রহমান, মনিব আল রাজীসহ ১৬ জন কৃষক বোরো ধানের বীজতলা তৈরি করেন।

প্রায় দেড় মাস আগে ৬ বিঘা জমিতে বোরো ধানের বীজ বপন করা হয়। আর ১০-১৫ দিন পরই তাদের বীজতলার চারাগুলো জমিতে রোপণের উপযুক্ত হয়ে উঠত। এ অবস্থায় গত সোমবার রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা পূর্বশত্রুতার জের ধরে বীজতলায় মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগ করে। ফলে চারাগাছগুলো ঝলসে যায়।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক দেউপুরা গ্রামের মনিব আল রাজী বলেন, 'গত মঙ্গলবার সকালে বীজতলায় গিয়ে দেখি, ধানের চারাগুলো হলুদ বর্ণ ধারণ করেছে এবং শুকিয়ে গেছে। প্রথমে মনে করি, কুয়াশা ও অতিরিক্ত শীতের কারণে হয়তো চারাগুলো হলুদ হয়ে যাচ্ছে। চারা বাঁচানোর জন্য বীজতলার আগের পানি বের করে দেই এবং বৈদ্যুতিক মর্টার ও শ্যালো মেশিনের সাহায্যে বীজতলায় নতুন পানি দেই। তারপরও যখন চারাগুলো শুকিয়ে মরে যেতে থাকে, তখন বুঝতে পারলাম, কীটনাশক দিয়ে চারাগুলো নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।'

এ বিষয়ে পোরশা থানার ওসি শফিউল আজম খান অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রমাণ পাওয়া গেলে অবশ্যই দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।