ফোন চুরির অপবাদ দিয়ে পিটিয়ে মাদ্রাসাছাত্র মেরাজুল ইসলামকে (৯) জখম করার অভিযোগে শিক্ষক মোহতামিম এরশাদকে গত রোববার রাতে আটক করেছে সলংগা থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে উল্লাপাড়া উপজেলার চড়িয়া দক্ষিণপাড়া কওমি মাদ্রাসায়। মেরাজুল ওই মাদ্রাসার ছাত্র এবং সলংগা থানার লাঙ্গলমোড়া গ্রামের হামিদুল ইসলামের ছেলে।

মেরাজুলের বাবা হামিদুল অভিযোগ করেন, রোববার দুপুরে মাদ্রাসাশিক্ষক মোহতামিম এরশাদ তার কক্ষে মোবাইল রেখে গোসল করতে যান। ফিরে এসে মোবাইল না পেয়ে তিনি মেরাজুলকে সন্দেহ করেন। এরপর তাকে পিটিয়ে জখম করেন। খবর পেয়ে স্বজনরা মেরাজুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় সাখাওয়াত এইচ মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করেন এবং এ ব্যাপারে সংলংগা থানায় একটি অভিযোগপত্র জমা দেন। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ রোববার রাতেই মাদ্রাসাশিক্ষক এরশাদকে আটক করে।

সলংগা থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী মাদ্রাসাশিক্ষক মোহতামিম এরশাদকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তদন্ত করে পুলিশ তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

মন্তব্য করুন