হউল্লাপাড়ার কলেজপাড়ায় ভাড়া বাসা থেকে তানিয়া খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তানিয়ার স্বামী দাবি করেন, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে তার বাবার দাবি, তানিয়াকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

উপজেলার নাগরৌহা গ্রামের মো. হেলালের সঙ্গে সাত মাস আগে উপজেলার পুকুরপাড় গ্রামের তায়জুল ইসলামের মেয়ে তানিয়ার বিয়ে হয়। তানিয়া হেলালের দ্বিতীয় স্ত্রী। তার প্রথম স্ত্রী গ্রামের বাড়ি নাগরৌহায় বাস করেন। হেলাল তানিয়াকে নিয়ে উল্লাপাড়া পৌর শহরের কলেজপাড়ায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। বুধবার রাতে পুলিশ হেলালের শোয়ার ঘর থেকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তানিয়ার লাশ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া মডেল থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।

তবে তানিয়ার বাবা তায়জুল ইসলাম স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে অভিযোগ করেন, তার মেয়ে তানিয়ার সঙ্গে তার স্বামী হেলালের পারিবারিক বিষয় নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে ঝগড়া-বিবাদ চলে আসছিল। এর জের ধরে হেলাল পরিকল্পিতভাবে তানিয়াকে হত্যা করে লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে। তায়জুল আরও জানান, তিনি এ ব্যাপারে আদালতে হত্যা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

উল্লাপাড়া মডেল থানার ওসি দীপক কুমার দাস জানান, মরদেহ সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

মন্তব্য করুন