১১ মাস পর গত বুধবার বগুড়ার আদমদীঘির নিহত গৃহবধূ রুমি আক্তারের (২০) ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পুলিশের হাতে এসেছে। তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়।

রিপোর্ট পাওয়ার পর বিকেলে আদমদীঘি থানায় নিহতের মা আদরী বিবি বাদী হয়ে যৌতুকের জন্য মারধর ও গর্ভপাত ঘটিয়ে হত্যার অভিযোগে রুমির স্বামী-শ্বশুরসহ চারজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। সন্ধ্যায় পুলিশ নিহতের স্বামী উপজেলার ছাতারবাড়িয়া গ্রামের হাসান প্রামাণিক, শ্বশুর আমজাদ হোসেন ও ভাশুর আনসার আলীকে গ্রেপ্তার করেছে।

২০২০ সালের ৫ অক্টোবর রুমি আক্তারের লাশ স্বামীর বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

মন্তব্য করুন