নওগাঁ সদর উপজেলার তালতলী বিলে বুধবার ভোরে ভাসমান রেস্টুরেন্টে আগুন লাগে। আগুনে রেস্টুরেন্টের প্রায় ৬ লাখ টাকার মালপত্র পুড়ে গেছে। এ ছাড়া রেস্টুরেন্টের পাশে খামারে থাকা ২৮টি ছাগল পুড়ে যায়।

২০১৬ সালে সদর উপজেলার দুবলহাটি সড়কের তালতলী বিলে বাঁশ-কাঠ ও টিন দিয়ে ভাসমান রেস্টুরেন্ট তৈরি করেন সদর উপজেলার চকপ্রাণ মহল্লার এরশাদ আলী। লোকালয় থেকে দূরে হওয়ায় যেখানে আশপাশে কোনো দোকানপাট বা বাড়িঘর নেই। তিনি রেস্টুরেন্টের পাশাপাশি একটি খামার গড়ে তোলেন। এখানে দেশি জাতের ছোট-বড় মিলে ২৮টি ছাগল ছিল। গতকাল ভোর ৫টায় রেস্টুরেন্টটিতে আগুন লাগে। লোকালয় থেকে দূরে হওয়ায় নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসের আসতে দেরি হয়। তবে তার আগেই সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

রেস্টুরেন্টের মালিক এরশাদ আলী বলেন, প্রতিদিনের মতো রাত ১১টার দিকে কয়েল জ্বালিয়ে দিয়ে বাড়ি চলে আসি। সকাল ৬টার দিকে ফোনে আমাকে জানানো হয় রেস্টুরেন্টে আগুন লেগেছে। কয়েল থেকে যদি আগুন লাগে তাহলে রাতেই লাগত, সকালে কেন। শত্রুতামূলক কেউ পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন লাগিয়ে দিতে পারে।

তিনি বলেন রেস্টুরেন্টের পাশপাশি সেখানে ছোট-বড় মিলিয়ে দেশীয় জাতের ২৮টি ছাগল ছিল। সবকিছু পুড়ে গেছে। এতে প্রায় ৬ লাখ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে।

নওগাঁ সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ভাসমান রেস্টুরেন্টে আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে।

নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক একেএম মুরশেদ বলেন, আগুনে মালিকের প্রায় চার লাখ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে।

মন্তব্য করুন