রাজশাহীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবদুল জলিলের সরকারি মোবাইল ফোন নম্বর ক্লোন করে প্রতারণার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে কেউ প্রতারিত হননি বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

প্রতারক চক্রটি জেলা প্রশাসকের ফোন নম্বর ক্লোন করে রাজশাহীর পবা, দুর্গাপুর ও বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফোন করে প্রতারণার চেষ্টা করে। কিন্তু জেলা প্রশাসকের কণ্ঠ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের পরিচিত হওয়ায় প্রতারক চক্র সুবিধা করতে পারেনি।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, 'জেলা প্রশাসকের নম্বর থেকে শুক্রবার বিকেলে ফোন আসে। কিন্তু কণ্ঠ ছিল অপরিচিত। তাই ফোন কেটে আবারও ওই নম্বরে ফোন করি। এ সময় জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল জানান, তিনি কোনো ফোন করেননি।'

বাঘার ইউএনও পাপিয়া সুলতানা বলেন, 'আমাকে ফোন করে একটি মোবাইল ফোন নম্বর দেওয়া হয়। বলা হয়, এটি ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তার নম্বর। এই নম্বরে যেন যোগাযোগ করি। কিন্তু কণ্ঠস্বর এবং কথা শুনেই প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে লাইন কেটে দিই।'

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, রাজশাহীর তিনজন ইউএনওকে ফোন করে প্রতারণার চেষ্টা করা হয়। তবে তারা সবাই আমার কণ্ঠ চেনেন। এ কারণে কেউ প্রতারিত হননি। বিষয়টি গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

মন্তব্য করুন