মৌলভীবাজারের ভবানীপুরে গৃহবধূ বন্দনা রানী পালের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বামী স্কুলশিক্ষক শিরীশ চন্দ্র পালকে (৩৩) গ্রেপ্তার করেছে আদমদীঘি থানা পুলিশ। এ ঘটনায় আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে মৃতের ভাই।

আদমদীঘির রামপুরা গ্রামের ক্ষুদিরাম পালের ছেলে স্কুলশিক্ষক শিরীশ চন্দ্র পালের সঙ্গে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার কল্যাণী গ্রামের স্বপন পালের মেয়ে বন্দনা রানী পালের বিয়ে হয় দেড় বছর আগে। শিরীশ মৌলভীবাজারের জুড়ি উপজেলার ছোট ধামাইল উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। স্বামীর চাকরির সুবাদে বন্দনা মৌলভীবাজারে থাকতেন। গত বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বন্দনা মারা গেছে বলে তার স্বজনদের জানান শিরীশ পাল। কিন্তু মৃতের স্বজনদের লাশ দেখতে দেওয়া হয়নি। ওই রাতেই বন্দনার ভাই তপন কুমার পাল আদমদীঘি থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

মন্তব্য করুন