মালয়েশিয়ার পার্লামেন্ট ভেঙে দিলেন নাজিব রাজাক

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে মালয়েশিয়ার পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। নিজের পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার দুই মাসেরও বেশি সময় বাকি থাকতেই গতকাল শুক্রবার পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে তিনি মালয়েশিয়ার রাজা সুলতান মোহাম্মদ ভি-এর কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় তহবিল আত্মসাতের অভিযোগ ওঠার পর ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে নাজিবের পদত্যাগের দাবি জোরালো হয়ে ওঠে। এ কারণে গত বছরই নাজিব রাজাক নির্বাচনের ডাক দেবেন বলে আশা করা হয়েছিল। তবে তা এড়িয়ে গেছেন নাজিব। অভিযোগ রয়েছে, নিম্নআয়ের পরিবার ও গ্রাম্য ভোটারদের আকৃষ্ট করতে তাদের জন্য বাজেটে সংস্কার আনার জন্য সময় নিচ্ছিলেন মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী।

শেষ পর্যন্ত শুক্রবার পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা দিলেন নাজিব। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া এক বিশেষ ঘোষণায় নাজিব রাজাক বলেন, পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার জন্য রাজা অনুমতি দিয়েছেন। ৭ এপ্রিল থেকে তা কার্যকর হবে।

মালয়েশিয়ার নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী, পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে অবশ্যই ভোটগ্রহণ হতে হবে। শিগগিরই ভোটের তারিখ নির্ধারণের জন্য মালয়েশিয়ার নির্বাচন কমিশন বৈঠক করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

২০১৫ সালে রাজাকের বিরুদ্ধে সরকারি তহবিল তছরুপের অভিযোগ উঠলে তার বিরুদ্ধে সরব হয়ে ওঠেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। তার দল ইউনাইটেড মালায়াস ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন (ইউএমএনও) রাজাককে সমর্থন দিলে দল থেকে সরে আসেন তিনি। পরে নাজিব বিরোধীদের নিয়ে নতুন জোট গড়ে তোলার ঘোষণা দেন। তার জোটে রয়েছেন কারাবন্দি বিরোধী নেতা আনোয়ার ইবরাহিম।

এদিকে পর্যাপ্ত কাগজপত্র না থাকার অভিযোগ তুলে মাহাথির মোহাম্মদের গঠিত নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিল করেছে মালয়েশিয়া।