শরণার্থী ঠেকাতে সীমান্ত কঠোর করছে ইইউ

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

শরণার্থীর অবাধ প্রবেশ ঠেকাতে সীমান্তে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও কঠোর করছে ইউরোপ। এ লক্ষ্যে সীমান্তে ১০ হাজার অতিরিক্ত নিরাপত্তা সদস্য নিয়োগের পরিকল্পনা হাতে নিচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ২৭ দেশের এই রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক জোটের প্রেসিডেন্ট জা ক্লদ জাঙ্কার গতকাল বুধবার বার্ষিক স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন ভাষণে এ কথা বলেন। খবর বিবিসির।

ভূমধ্যসাগর পার হয়ে শরণার্থী ভরা জাহাজগুলো ইউরোপে প্রবেশ করছে। আর তা সামলাতে সাময়িক সমাধানের চেয়ে ইউরোপীয় দেশগুলোর আরও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করা জরুরি বলে মনে করেন ইইউর এই প্রেসিডেন্ট। সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারে আরও ১০ হাজার সদস্য নিয়োগের কথা বলেন জাঙ্কার। পাশাপাশি ইইউভুক্ত সদস্য দেশগুলোতে আশ্রয়প্রার্থী ও শরণার্থীদের প্রয়োজনীয় কর্মপ্রক্রিয়া জোরদারে ইউরোপিয়ান অ্যাসাইলাম এজেন্সিকে আরও উন্নত করার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

শরণার্থী সংকট ইউরোপের জন্য দিন দিন ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে। এতদিন এ সমস্যার কোনোরকম সমাধান হলেও এখন তা প্রকট আকারে দেখা দিয়েছে। আর এসব শরণার্থী প্রবেশে সরাসরি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বেশিরভাগ দেশ, যা সমস্যার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। এমতাবস্থায় সীমান্তের কঠোর নিরাপত্তার কথা অনেক দিন থেকেই ভাবছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

জাঙ্কার বলেন, বর্তমানে জনতোষণবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও ব্রেক্সিটের মতো বেশ কিছু হুমকি মোকাবেলা করছে ইউরোপ। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'আমরা ইউরোপীয় ইউনিয়নের সামরিকায়ন করব না। তবে আমরা চাই, আরও বেশি স্বায়ত্তশাসন আর বৈশ্বিক দায়গুলো ঠিকঠাক পালন করতে। সন্ত্রাসবাদ ও জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিভিন্ন হুমকি থেকে আমাদের নাগরিকদের একটি ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী ইউরোপই কেবল রক্ষা করতে পারে।'