ভারতে ভেজাল মদপানে ৪৪ জনের মৃত্যু

প্রকাশ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯     আপডেট: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

ভারতের উত্তর প্রদেশে ভেজাল মদপানে অন্তত ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত তিন দিনে রাজ্যটির পশ্চিমাঞ্চলীয় জেলা সাহারনপুরে ৩৬ জন ও পূর্বাঞ্চলীয় জেলা কুশিনগরে আটজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন আরও ২৪ জন। চিকিৎসকদের আশঙ্কা, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। খবর এনডিটিভির।

সাহারানপুর জেলার ম্যাজিস্ট্রেট এ কে পান্ডে বলেন, পিন্টু নামের এক ব্যক্তি সাহারানপুরে মৃত ও অসুস্থদের কাছে ৩০ বোতল মদ বিক্রি করে। এর মধ্যে কয়েকটি বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। এই বোতলগুলো থেকে যারাই মদপান করেছে, তারা মৃত বা হাসপাতালে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, শুরুতেই চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হলে মৃতদের সংখ্যা অনেক কম হতো।

উত্তর প্রদেশের পুলিশের দাবি, সাহারানপুরের নিহতরা এই ভেজাল মদপান করে উত্তরাখন্ডে। সেখানে একটি শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে জেলার কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। আর কুশিনগরের ভেজাল মদ বিহারে তৈরি করা হতে পারে। যদিও সেখানে মদ উৎপাদন নিষিদ্ধ।

এ ঘটনার পরপরই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ইয়োগি আদিত্যনাথের নির্দেশে অবৈধ মদ উৎপাদন ও বিক্রির বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এরই মধ্যে বান্দা এলাকা থেকে ব্যাপক পরিমাণ অবৈধ মদ জব্দ করা হয়েছে। আট মদ ব্যবসায়ীকে আটকও করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রাদেশিক সরকার ১২ পুলিশ সদস্যসহ ৩৫ কর্মকর্তাকে বরখাস্তও করেছে।

ভারতে প্রায়ই মদপানে মৃত্যুর খবর আসে। দরিদ্র শ্রেণির লোকজন সস্তায় স্পিরিট মেশানো এসব মদ পান করায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম।