সাবেক সৌদি গোয়েন্দা প্রধানের দাবি

ইসরায়েলের সঙ্গে গোপন সম্পর্ক ২৫ বছর ধরে

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

ইসরায়েল ও বেশ কয়েকটি উপসাগরীয় দেশের মধ্যকার গোপন সম্পর্কের কথা ফাঁস করেছেন সৌদি আরবের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান ও প্রিন্স তুর্কি আল ফয়সাল। ইসরায়েলের টেলিভিশন চ্যানেল ১৩-এর সাংবাদিক বারাক রাভিদকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ সম্পর্কের কথা বলেন। ইসরায়েলি সাংবাদিক বলেছেন, 'উপসাগরীয় গোপন কথা' নামের ধারাবাহিক অনুষ্ঠানে ইসরায়েলের সঙ্গে সৌদি আরবসহ বেশ কয়েকটি উপসাগরীয় দেশের ২৫ বছর ধরে গোপন অর্থনৈতিক, সামরিক এবং রাজনৈতিক সম্পর্কের কথা ফাঁস করা হবে। খবর মিডলইস্ট মনিটরের।

ফিলিস্তিনের ভূমি দখল করে ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার ঘোষণা দেয় ইসরায়েল। পরের বছর আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর মধ্যপ্রাচ্যে নিজেদের অবস্থ্থান সুসংহত করে ইহুদি রাষ্ট্রটি। ফিলিস্তিনি ভূমি দখলের কারণে ইহুদি জাতিগোষ্ঠীর দেশ ইসরায়েলকে প্রকাশ্যে কখনও স্বীকৃতি না দিলেও সৌদি আরবসহ ওই উপসাগরীয় দেশগুলো তাদের সঙ্গে গোপন সম্পর্ক রেখে এসেছে।

কাতারের সংবাদপত্র আল-আরিব জানিয়েছে, 'উপসাগরীয় গোপন কথা' অনুষ্ঠানের জন্য সাংবাদিক বারাক রাভিদ ইসরায়েলের সঙ্গে গোপন সম্পর্ক নিয়ে উপসাগরীয় অঞ্চলের অন্তত ২০ জন কূটনীতিকের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। তাদের অনেকেই ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি। তবে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলনকে বহুবার সমালোচনা করা আল-ফয়সাল প্রকাশ্যে কথা বলতে রাজি হন।

সাংবাদিক রাভিদ দাবি করেছেন, তার ধারাবাহিক অনুষ্ঠানে ইসরায়েল, সৌদি আরব, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যকার অর্থনৈতিক, সামরিক ও রাজনৈতিক গোপন সম্পর্কের বিভিন্ন তথ্য ফাঁস করা হবে। ইসরায়েলের বেশিরভাগ নাগরিক এসব সম্পর্কের কথা জানেন না বলে দাবি করেন রাভিদ। তিনি আরও দাবি করেছেন, ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং তাদের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ এসব সম্পর্ক রক্ষা করে থাকে।

ইসরায়েলি টেলিভিশনে প্রচার করা দুই মিনিটের সাক্ষাৎকারে সৌদি রাজ পরিবারের সদস্য আল-ফয়সালকে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতকে 'ফিলিস্তিনি ইস্যু' হিসেবে অভিহিত করতে শোনা গেছে। তার এই অবস্থ্থান সৌদি আরবের প্রকাশ্য অবস্থ্থানের বিরোধী।