উত্তর-দক্ষিণের পার্থক্যে জিতবে বিজেপি!

প্রকাশ: ২৩ মে ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

আজ বৃহস্পতিবার ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হবে। তবে ১৯ মে সপ্তম বা শেষ ধাপের ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই প্রকাশিত হতে থাকে এক্সিট পোল বা বুথফেরত জরিপের ফল। প্রায় সব বুথফেরত জরিপের ফলেই এগিয়ে আছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমক্রেটিক এলায়েন্স (এনডিএ) জোট। লোকনীতি-সিএসডিএস বুথফেরত জরিপের ফল প্রকাশ করেছে। ওই ফল অনুযায়ী বিভিন্ন রাজ্যে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট কেমন ভোট পেতে পারে, তার চিত্র উঠে এসেছে। দেখা গেছে, বিজেপি উত্তরের রাজ্যগুলোতে আধিপত্য ধরে রাখবে। তবে দক্ষিণের কয়েকটি রাজ্যে তারা খুবই কম আসন পাবে। আর কংগ্রেসের আসন আগের বারের চেয়ে বাড়লেও ক্ষমতায় যাওয়ার মতো আসন হয়তো তারা পাবে না।

২০১৯ সালের বাস্তবতায় ভারতকে তিনটি রাজনৈতিক অঞ্চলে ভাগ করা যায়। এগুলো হলো-উত্তর এবং পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকা, যেখানে বিজেপি তার অবস্থান এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে। পূর্ব এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকা, যেখানে বিজেপি কেন্দ্রীয় চরিত্র হিসেবে নিজেদের শক্তি বিস্তারের চেষ্টা করছে। আর দক্ষিণাঞ্চলে বিজেপির অবস্থান একেবারে নেই বললেই চলে।

লোকসভা নির্বাচনে মূলত জাতীয় ইস্যুগুলো নিয়েই বাহাস হয় বেশি। তবে রাজ্য পর্যায়ের ইস্যুগুলোও জনগণের জন্য ভোট প্রদানে সিদ্ধান্ত গ্রহণে কাজ করে। কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন দলকে আবারও ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে ওই রাজ্যে দলটির কী অবস্থান তা বিবেচনায় নেন ভোটাররা। অন্য অঞ্চলের তুলনায় মোদিকে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় দেখতে চাওয়ার ক্ষেত্রে পশ্চিম ভারতের হিন্দিভাষী জনগণ এগিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে কর্ণাটক, অল্প্রব্দপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানায় বিজেপিকে সমর্থন দেওয়ার হার ধীরে ধীরে বাড়ছে। যদিও তা শতকরা এক অঙ্কে রয়ে গেছে। তামিলনাড়ূ এবং কেরালায় কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি বিরোধিতার হার আরও বেড়েছে। অর্থাৎ বিজেপিকে পুনরায় সমর্থন দেওয়ার ক্ষেত্রে উত্তর এবং দক্ষিণ ভারতের জনগণের মাঝে বিভক্তি পরিস্কার।

যে সমস্ত রাজ্যে আঞ্চলিক দলগুলোর তুলনায় বিজেপি এবং কংগ্রেস শক্তিশালী সে সব এলাকায় মোদির প্রতি জনগণের সমর্থন বেড়েছে। যে সমস্ত রাজ্যে কংগ্রেস বা বিজেপি শক্তিশালী নয় বরং স্থানীয় দলগুলো শক্তিশালী সেখানে বিজেপির সমর্থন বাড়লেও সামষ্টিকভাবে

জনগণ দলটিকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায় না।

যে সমস্ত রাজ্যে বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যে মূল লড়াই হচ্ছে সে সমস্ত রাজ্যের ৪৭ শতাংশ মানুষ বিজেপির ওপর সন্তুষ্ট। শক্তিশালী আঞ্চলিক দলকে যেখানে বিজেপি মোকাবেলা করছে সেখানে দলটির প্রতি ৩৫ শতাংশ মানুষ সন্তুষ্ট। যে রাজ্যে বিজেপি এবং কংগ্রেসের স্থানীয় মিত্র দলগুলো লড়ছে সেখানে বিজেপির প্রতি সন্তুষ্ট ২৫ শতাংশ মানুষ। যেখানে বিজেপি কিংবা কংগ্রেস কোনো দলই নেই বরং মূল লড়াই হয়েছে স্থানীয় দুটি শক্তিশালী দলের মধ্যে সেখানে বিজেপির প্রতি ২৩ শতাংশ মানুষ সন্তুষ্ট।

অর্থাৎ এই সমীকরণ থেকে একটা বিষয় পরিস্কার। তা হলো যে সমস্ত অঞ্চলে মূল লড়াই হচ্ছে বিজেপি এবং কংগ্রেসের, সেসব অঞ্চলের মানুষ চাইছে বিজেপি দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসুক। তবে শেষ পর্যন্ত কী হয়, তা আজই দেখা যাবে।