ভারতের সামরিক বিমান বিধ্বস্ত

প্রকাশ: ০৪ জুন ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

১৩ আরোহী নিয়ে ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়েছে। গতকাল সোমবার আসাম থেকে অরুণাচল রাজ্যে যাওয়ার সময় বিমান বাহিনীর এএন-৩২ নামের বিমানটি হঠাৎ রাডার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এর পর থেকে বিমানটির সঙ্গে আর যোগাযোগ করা যায়নি। তল্লাশি অভিযানের পর জানা যায়, সেটি অরুণাচল প্রদেশে সীমান্তবর্তী এলাকায় বিধ্বস্ত হয়েছে। তবে আরোহীদের কারও সন্ধান পাওয়া যায়নি। আশঙ্কা করা হচ্ছে, তারা সবাই নিহত হয়েছেন। খবর এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, নিখোঁজ বিমানটি দুপুর ১২টা ২৫ মিনিট নাগাদ আসামের জোরহাট থেকে উড্ডয়ন করে। চীন সীমান্তের কাছে অরুণাচল প্রদেশের মেচুকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল বিমানটি। উড্ডয়নের ৩৫ মিনিট পর দুপুর ১টার সময় শেষবার যোগাযোগ করা যায় বিমানটির সঙ্গে। এর পরই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বিমানে আটজন ক্রু ও পাঁচজন যাত্রী ছিলেন। তাদের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানা যায়নি।

ভারতীয় বিমান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিখোঁজ বিমানের খোঁজে তল্লাশি শুরু করার পর কয়েক ঘণ্টা পর এর বিধ্বস্ত হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এর আরোহীদের মধ্যে কেউ বেঁচে আছেন কি-না, তা নিশ্চিত নয়।

অরুণাচল প্রদেশের পশ্চিম সিয়াং জেলার মেচুকা উপত্যকা। সেখানেই রয়েছে দ্য মেচুকা অ্যাডভান্স ল্যান্ডিং গ্রাউন্ড। চীন সীমান্ত থেকে ৩০ কিলোমিটার ভারতের ভেতরে ম্যাকমোহন লাইনের কাছেই এই ল্যান্ডিং গ্রাউন্ড রয়েছে। ১৯৮৪ সাল থেকে এএন-৩২ বিমান ব্যবহার করে আসছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। বহু বছর ধরে এই বিমানের ওপর ভরসা রেখেছে তারা।

তবে ২০১৬ সালের জুলাই মাসে ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি বিমান ২৯ যাত্রীসহ বঙ্গোপসাগরের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় অদৃশ্য হয়ে গিয়েছিল। এএন-৩২ বিমানটি চেন্নাই থেকে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল। নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর এটির আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। সেপ্টেম্বরে অনুসন্ধান বন্ধ করা হয়। ধারণা করা হয়, বিমানটি মাঝপথে বিকল হয়ে সাগরে বিধ্বস্ত হয়।