জাপানে স্টুডিওতে দুর্বৃত্তের আগুন নিহত ৩৩

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

জাপানের কিয়োটো শহরে একটি অ্যানিমেশন স্টুডিওতে দুর্বৃত্তের অগ্নিসংযোগে পুড়ে কমপক্ষে ৩৩ জন নিহত ও ৩৬ জন আহত হয়েছেন। তিনতলা ভবনটির পুরোটাই পুড়ে গেছে। ওই সময় ভবনে অন্তত ৭০ কর্মী উপস্থিত ছিলেন। গতাকল বৃহস্পতিবারের এ ঘটনাকে 'নাশকতামূলক' বলে ধারণা করা হচ্ছে। জাপানে সাধারণত এ ধরনের ঘটনা বিরল। ফলে লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে দেশটির কর্তৃপক্ষ জানায়, সকালে এক ব্যক্তি ওই ভবনে দাহ্য তরল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। সে 'মর মর' বলে চিৎকার করে। তবে সেই ব্যক্তি ঠিক কে, তা শনাক্ত করা যায়নি। তাকে শনাক্ত করতে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। খবর এএফপি ও বিবিসির।

পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, গতকাল সকাল ১০টায় এক ব্যক্তি কিয়োটোর ওই অ্যানিমেশন কোম্পানির স্টুডিওতে ঢুকে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এরপর দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে স্টুডিওটি। এতেই হতাহতের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৪১ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। তবে তার নাম-পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। তাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। জাপানের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যম এনএইচকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভবনটিতে কেন আগুন দেওয়া হয়েছে, তা পরিস্কার হওয়া যায়নি। সহিংসতার জন্য যদি এই হামলা চালানো হয়ে থাকে, তাহলে গত কয়েক দশকের মধ্যে এটিই হবে জাপানে সবচেয়ে বড় প্রাণঘাতী অপরাধের ঘটনা।

কিয়োটো অ্যানিমেশন নামে একটি অ্যানিমেশন কোম্পানির স্টুডিও এটি। তিনতলা ভবনের পুরোটা জুড়ে তাদের কাজ চলত। অ্যানিমেশন সিরিজ ও সিনেমা বানানোয় বিশ্বজুড়ে তাদের খ্যাতি রয়েছে। স্টুডিওতে আগুন লাগার খবর মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বহু মানুষ এ ঘটনায় শোক জানিয়ে প্রকৃত কারণ উদ্ঘাটনের জোর তাগিদ দিয়েছেন। কিয়োটো বিভাগীয় পুলিশের এক মুখপাত্র বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ছুরিও পেয়েছে পুলিশ। ঘটনাস্থলের কাছে থাকা লোকজন জানান, তারা পরপর কয়েকটি বিস্ম্ফোরণের শব্দ শুনেছেন।