মহাত্মা গান্ধীর দেহভস্ম চুরি

প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

সংরক্ষণ করে রাখা ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর দেহভস্মের কিছু অংশ চুরি হয়ে গেছে। একই সঙ্গে তার একটি প্রতিকৃতি বিকৃত করে সেখানে লেখা হয়েছে 'বিশ্বাসঘাতক'। গত বুধবার মধ্যপ্রদেশের রেওয়ায় 'বাপু ভবন'-এ এসব ঘটনা ঘটে। এদিন ছিল তার সার্ধশত জয়ন্তী। পুলিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে। খবর বিবিসির।

রেওয়ার বাপু ভবনে গান্ধীর দেহভস্ম নেওয়া হয় ১৯৪৮ সালে। এক উগ্র হিন্দুত্ববাদীর হাতে খুন হন তিনি। হিন্দু-মুসলিম ঐক্যের পক্ষে দৃঢ় অবস্থান নেওয়ায় উগ্র হিন্দুরা তাকে বিশ্বাস ঘাতক বলে থাকে। যদিও নিজ ধর্মের প্রতি বিশ্বস্ত ছিলেন তিনি। এদিকে, মধ্যপ্রদেশ পুলিশ বলেছে, 'এ ধরনের ঘটনা জাতীয় ঐক্য ও শান্তি বিনষ্টের নামান্তর।' এ বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। বাপু ভবনের তত্ত্বাবধায়ক মঙ্গল তিওয়ারি বলেছেন, বাপুজির দেহভস্ম চুরির ঘটনা একটি গর্হিত কাজ। তিনি আরও জানান, গান্ধীজির জন্মদিনে বুধবার সকালে বাপু ভবনের দরজা সবার জন্য খুলে দেওয়া হয়। সকাল ১১টার দিকে তিনি ভবনে ফিরে দেখেন বাপুর দেহভস্মের খানিকটা চুরি হয়ে গেছে।

এ ঘটনায় স্থানীয় কংগ্রেস নেতা গুরমিত সিং থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।