পাকিস্তানের সঙ্গে মামলা জয় হলো হায়দরাবাদ রাজপরিবারের

প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

পাকিস্তান সরকারের সঙ্গে দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর যুক্তরাজ্যের আদালতে সাড়ে তিন কোটি পাউন্ডের অধিকার ফিরে পেল হায়দরাবাদের শেষ নিজামের (রাজা) পরিবার। লন্ডনের রয়্যাল কোর্টস অব জাস্টিস বুধবার এক রায়ে বলেছে, যুক্তরাজ্যে ব্যাংকে সংরক্ষিত ওই অর্থের ওপর পাকিস্তানের কোনো অধিকার নেই, এর মালিকানা নিজাম ওসমান আলি খানের বংশধরদের।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশভাগের ঠিক পরপর ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের ন্যাশনাল ওয়েস্টমিনস্টার ব্যাংকে পাকিস্তানের তখনকার হাইকমিশনারের অ্যাকাউন্টে ১০ লাখ পাউন্ড জমা দেন হায়দরাবাদের সপ্তম নিজাম ওসমান আলি খান, যা নিয়ে এই বিরোধের সূচনা। সেই টাকাই এখন সুদে-আসলে বেড়ে সাড়ে তিন কোটি পাউন্ড হয়েছে। ব্রিটিশ আমলে হায়দরাবাদ ছিল একটি করদ রাজ্য। নিজাম ওসমান আলি খান সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলেন না, তিনি কোন পক্ষে যাবেন? ভারত, না পাকিস্তান। ১৯৪৮ সালে এক সামরিক অভিযানে হায়দরাবাদ ভারতের অংশে পরিণত হয়। তার ঠিক আগে আগে লন্ডনের ওই ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নিজামের টাকা জমা পড়ে। নিজামের বংশধরদের দাবি, হায়দরাবাদ ভারতের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার কয়েক সপ্তাহ পর ওসমান আলি খান ওই টাকা ফেরত চেয়েছিলেন। কিন্তু পাকিস্তান তা ফিরিয়ে দিতে অস্বীকার করে।

ন্যাশনাল ওয়েস্টমিনস্টার ব্যাংকও আদালতের মাধ্যমে এ বিবাদের সুরাহা হওয়ার আগ পর্যন্ত কোনো পক্ষকে ওই অর্থ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। যুক্তরাজ্যের আদালতে এ মামলায় নিজামের দুই উত্তরসূরি মুকররম শাহ ও মুফাখম শাহর সঙ্গে ভারত সরকারও পক্ষভুক্ত হয়। মামলার শুনানিতে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বলা হয়, নিজামের পক্ষ থেকে ওই টাকা তাদের দেওয়া হয়েছিল অস্ত্র কেনার জন্য। কিন্তু আদালতের রায়ে বলা হয়, ওই টাকা জমা পড়েছিল যুক্তরাজ্যে একটি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে। এটা প্রমাণ করে না যে, ওই টাকা পাকিস্তানকে দেওয়া হয়েছিল।