ট্রাম্পের ভেটোর বিরুদ্ধে গিয়ে প্রথমবারের মতো প্রতিরক্ষা বিলের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস। সোমবার দেশটির হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের শতাধিক রিপাবলিকান সদস্য ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে এক হয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভেটো দেওয়া ৭৪০ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলারের প্রতিরক্ষা বিলের অনুমোদন দেয়। এদিকে দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অভিযোগ করেছেন, ট্রাম্প প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর ব্যাপক ক্ষতি করেছে। তার টিমকে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা তথ্য দিয়ে সহায়তা করা হচ্ছে না। এসব কারণে ট্রাম্পের ওপর চটেছেন বাইডেন।

ট্রাম্পের ভেটোর বিরুদ্ধে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের এই সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে সহজেই অনুমান করা যাচ্ছে, খুব শিগগিরই সিনেটও এই বিলে অনুমোদন দেবে। অর্থাৎ শেষ বেলায় এসে থাকছে না ট্রাম্পের ভেটো ক্ষমতা। এ পর্যন্ত ৯ বার ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগ করেছেন ট্রাম্প। তবে এবারই প্রথম তার বিরুদ্ধে গিয়ে কোনো পদক্ষেপ নিল কংগ্রেস। ৭৪০ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলারের প্রতিরক্ষা বিলে ভেটোর বিপক্ষে ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ ৩২২টি ভোট দিয়েছে, যেখানে ট্রাম্পের নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির ১০৯ জন রয়েছেন। এখন রিপাবলিকান-সংখ্যাগরিষ্ঠ সিনেটে এটি উত্থাপন করা হবে। ট্রাম্পের ভেটো ক্ষমতা বাতিলে দুই-তৃতীয়াংশ সমর্থন প্রয়োজন হবে। জাতীয় প্রতিরক্ষা অনুমোদন আইনের মধ্যে সামরিক প্রকল্পের জন্য অর্থায়ন এবং সৈন্যদের বেতন বৃদ্ধির বিষয় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আইনটি এই মাসে ৩৩৫ ভোট পেয়ে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে এবং ৮৪ ভোট পেয়ে সিনেটে পাস হয়েছিল।

এদিকে বাইডেনের অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগসহ বিভিন্ন সংস্থা থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য ও সহযোগিতা না পাওয়ার বিষয়টি দেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। জাতীয় সুরক্ষা ও বৈদেশিক নীতি বিষয়ক এক ব্রিফিংয়ের পর বক্তব্য রাখেন বাইডেন। গত ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইলেকটোরাল ভোটে ট্রাম্পের চেয়ে অনেক বেশি ব্যবধানে জয় নিশ্চিত করেন জো বাইডেন। কিন্তু নির্বাচনের পর থেকেই ট্রাম্প নিজেকে জয়ী দাবি করতে থাকেন। তিনি ফলাফল মেনে না নিয়ে নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ আনেন। এমনকি বিভিন্ন রাজ্যে তার প্রচারণা শিবির নির্বাচনের ফলাফলের বিরুদ্ধে মামলাও করে।

মন্তব্য করুন