যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গ্রিনকার্ড আবেদনকারীদের ওপর সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আরোপিত নিষেধাজ্ঞাসহ বেশ কয়েকটি নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন। গত বছর করোনা মহামারিতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জন্য কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার অজুহাতে ট্রাম্প এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন। বাইডেন গত বুধবার নতুন নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে ট্রাম্পের এসব বৈরী নীতি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে মুক্ত করার প্রয়াস নিয়েছেন। খবর আলজাজিরার।

ভিসা নিষেধাজ্ঞা বাতিল করে বাইডেন বলেন, এই নিষেধাজ্ঞার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী অনেক পরিবার ও কিছু বৈধ পরিবারের সদস্যরা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তাছাড়া এই নিষেধাজ্ঞা মার্কিন শিল্প ও বাণিজ্য ক্ষেত্রে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে। এই ভিসা নিষেধাজ্ঞায় যুক্তরাষ্ট্রের কোনো স্বার্থ নেই বলেও জানান তিনি। ট্রাম্পের কঠোর অভিবাসননীতি বাতিলের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বাইডেন। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে অভিবাসনের সমর্থকরা এই নিষেধাজ্ঞা বাতিলের জন্য চাপ দিয়ে আসছিলেন। ৩১ মার্চ এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

ক্যালিফোর্নিয়ার অভিবাসী আইনজীবী কার্টিস মরিসন আলজাজিরাকে বলেছেন, আমি খুব রোমাঞ্চিত অনুভব করছি এটা ভেবে যে, বাইডেন প্রশাসন কঠোর অভিবাসন নীতিটি বাতিল করেছেন। তিনি আরও বলেন, এটা নিয়ে আমি উদ্বিগ্নও। কারণ এই মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্র বহু ভিসা আবেদনের জটে পড়বে। বাইডেনকে এখন এই সমস্যা মোকাবিলায় পদক্ষেপ নিতে হবে। ভিসা প্রসেসিংয়ের আবেদনের জট কাটাতে কয়েক বছর সময় লেগে যেতে পারে বলে ধারণা করছেন সংশ্নিষ্টরা। গত বছর অক্টোবর মাসে ক্যালিফোর্নিয়ার একজন বিচারক বিদেশি অতিথি শ্রমিকদের ভিসা ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার কারণে আটকে দিয়েছিলেন। ফলে ক্ষতির মুখে পড়েছিলেন কয়েক লাখ শ্রমিক। এরপর তারা এই নীতির বিরুদ্ধে আদালতের শরণাপন্ন হন। এই বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন কর্তৃপক্ষের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। ২০ জানুয়ারি ক্ষমতা গ্রহণের পর থকে বাইডেন একের পর এক নির্বাহী আদেশ জারি করছেন। চার বছরে বেপরোয়া সব কাজ করে ট্রাম্প এক বিশৃঙ্খল যুক্তরাষ্ট্র রেখে গেছেন। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন বাইডেন।

মন্তব্য করুন