ভারতে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম বাড়ার প্রতিবাদে ব্যাটারির স্কুটার চালিয়ে গত মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের সচিবালয় নবান্নে এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন মমতা বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকার কবে দেশটাকেই বেঁচে দেবে। মোদি সরকার যখন প্রথম ক্ষমতায় আসে তখনকার এবং এখনকার পেট্রোল-ডিজেলের দামের মধ্যে বিরাট পার্থক্য, এটা একটা বড়সড় ভাঁওতা। পেট্রোল-ডিজেলের দাম বাড়ার প্রতিবাদে আগামী দিনে তৃণমূল কংগ্রেস আরও কর্মসূচি নেবে বলে জানিয়েছেন মমতা। সেই সঙ্গে গোটা দেশে অন্যান্য বিরোধীদেরও রাস্তায় নামতে অনুরোধ করেন তিনি।

জ্বালানির দাম বাড়ার প্রতিবাদে এদিন কার্যত নজিরবিহীন প্রতিবাদ কর্মসূচি গ্রহণ করেন মুখ্যমন্ত্রী। গাড়ির পরিবর্তে এদিন কলকাতার হাজরা থেকে ইলেকট্রিক স্কুটারে নবান্ন পর্যন্ত যান মমতা। গাড়ির বদলে বাড়ি থেকে হেঁটে হাজরা মোড় আসেন তিনি। সেখান থেকে ইলেকট্রিক স্কুটারে নবান্নে যান। চালকের আসনে ছিলেন পৌরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

নবান্নে পৌঁছে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, যেভাবে পেট্রোল, ডিজেল, গ্যাসের দাম বেড়েছে, আমরা তার প্রতিবাদ করছি। একটা গ্যাস সিলিন্ডার ৮০০ টাকা হয়ে গেছে, গতকাল রাতে আবার দাম বেড়েছে। এখন কেরোসিন পর্যন্ত পাওয়া যাচ্ছে না। আমার রাজ্যের ১ কোটি মানুষ কেরোসিনে রান্না করেন। তারা রান্না করার জন্য কেরোসিন পাচ্ছেন না। পেট্রোল, ডিজেলের দাম বাড়লে রান্নাঘরেও আগুন লাগে। সাধারণ মানুষকে সেজন্য ভুগতে হয়। আগে কৃষকদের কথা ভেবে ডিজেলের দাম বাড়ত না। এখন তারা কৃষকদের পর্যন্ত রেয়াত করছে না।

এদিকে করোনা টিকা নিয়ে ফের উত্তপ্ত পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি। রাজ্যের মানুষকে বিনামূল্যে করোনার টিকা দিতে চেয়ে মোদিকে চিঠি দিয়েছেন মমতা। তারপরই বারাকপুরের জনসভা থেকে তাকে পাল্টা জবাব দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। নাড্ডা বলেন, মোদি আগেই সবার টিকার ব্যবস্থা করেছেন। ১ মার্চ থেকে ষাটোর্ধ্ব এবং ৪৫ বছরের বেশি বয়স্ক যাদের কোমর্বিডিটি রয়েছে, তাদের টিকাকরণ শুরু হচ্ছে। সরকারি কেন্দ্র থেকে বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন পাবেন তারা। এর পরই কটাক্ষ করে তিনি বলেন, মমতাজি এই টিকা পর্যাপ্ত নয়। আরও অনেক টিকা পাবেন। আয়ুষ্ফ্মান ভারতের টিকা পাবে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ। রাজ্যের উন্নয়নের জন্য কৃষক সম্মাননিধির টিকা পাবে এখানকার মানুষ। তোলাবাজি, চালচুরি, তোষণ, কাটমানির বিরুদ্ধেও টিকা পাবে পশ্চিমবঙ্গ। এর ব্যবস্থা করব আমরা।

মন্তব্য করুন