সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদ ও এর আশপাশের কয়েকটি এলাকায় শনিবার রাতভর ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা।এ হামলার দায় স্বীকার করে আরও হামলার হুমকি দিয়েছে হুতিরা। খবর এএফপির।

বিদ্রোহীদের আল-মাসিরা টিভি চ্যানেলে হুতি মুখপাত্র ইয়াহিয়া আল-শারি বলেন, শত্রুদের রাজধানী রিয়াদের সংবেদনশীল অঞ্চলগুলো লক্ষ্য করে একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও ১৫টি ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং যতক্ষণ না আমাদের দেশে আগ্রাসন বন্ধ হবে, ততদিন হামলা বাড়তে থাকবে।

এদিকে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে হুতি বিদ্রোহীদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ব্যর্থ করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। এ সময় তারা হুতিদের ছোড়া ছয়টি ড্রোন প্রতিহত করেছে। এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট জানিয়েছে।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আল আকবরিয়ার খবরে বলা হয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রের টুকরো অংশ রিয়াদের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। এতে অন্তত একটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এমন এক সময়ে এই হামলার ঘটনা ঘটল যখন রিয়াদের বাইরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ফর্মুলা ই চ্যাম্পিয়নশিপ। রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ওই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। আল আকবরিয়ায় সম্প্রচারিত ফুটেজে রিয়াদের আকাশে বিস্ম্ফোরণ ঘটতে দেখা গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরাও একই ধরনের ভিডিও পোস্ট করেছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাতের আকাশে তীব্র আলোর ঝলকানির সঙ্গে বিস্ম্ফোরণের বিকট শব্দ শুনেছেন তারা। ধারণা করা হচ্ছে সৌদি আরবের প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা ওই ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রতিহত করেছে। সৌদি জোটের মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল তুর্কি আল মালিকি বলেছেন বেসামরিক মানুষকে লক্ষ্যবস্তু বানাতে হুতিরা পদ্ধতিগতভাবে এবং নির্বিচার পথ বেছে নিয়েছে। রিয়াদে বিস্ম্ফোরণের পর সেখানকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের পক্ষ থেকে আমেরিকার সব নাগরিককে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে। হামলার পর রিয়াদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কয়েকটি ফ্লাইট বিলম্বিত কিংবা অন্য জায়গায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য করুন