পেগাসাস কেলেঙ্কারি নিয়ে কড়া সমালোচনার মুখে পড়েছে বিভিন্ন দেশের সরকার। ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠান এনএসওর তৈরি পেগাসাস নামে স্মার্টফোনে আড়িপাতার প্রযুক্তি ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে ভারত, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশের সরকারের বিরুদ্ধে। এর শিকার হওয়া বিরোধী রাজনীতিক ও ভিন্নমতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপের কঠোর নিন্দা করেছেন। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধী রাজনীতিক ও সাংবাদিকদের ওপর এ ধরনের নজরদারি চালানোর জন্য দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে জবাব চেয়েছেন। এদিকে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ হাউস অব লর্ডসে গতকাল শুক্রবার পেগাসাস স্পাইওয়্যারের ব্যবহার বন্ধে উত্তপ্ত আলোচনা হয়েছে। খবর বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্সের।

ভারতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়সহ তিন শতাধিক রাজনীতিক, সাংবাদিক ও অধিকারকর্মী পেগাসাসের আড়িপাতার শিকার হয়েছেন। এ বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার রাজ্য সচিবালয় নবান্নে সংবাদ সম্মেলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, পেগাসাস কেলেঙ্কারি ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারির চেয়েও ভয়ংকর। ইমার্জেন্সির চেয়ে সুপার ইমার্জেন্সি। এভাবে হিটলারি কায়দায় মানুষকে আর কত দিন ভয় দেখাবে? ইসরায়েল থেকে ভারত সরকার এই সফটওয়্যার কিনেছে। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জবাব চাই।

এদিকে ফোনে আড়িপাতা নিয়ে রাজ্যসভায় গত বৃহস্পতিবার তুলকালাম কাণ্ড বেধে যায়। তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ শান্তনু সেন রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের হাত থেকে বক্তৃতার কাগজ ছিনিয়ে নিয়ে তা ছিঁড়ে ফেলেন। এর জেরে গতকাল শুক্রবার রাজ্যসভার চলমান বর্ষাকালীন অধিবেশনের বাকি দিনগুলোর জন্য শান্তনু সেনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

অন্যদিকে, ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে আলোচনা হয়েছে। হাউস অব লর্ডসে প্রসঙ্গটি তুলেছিলেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি ব্যারোনেস মঞ্জিলা পলা উদ্দিন। তার জবাবে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া ও কমনওয়েলথবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী লর্ড আহমেদ বলেছেন, 'ব্রিটিশ নাগরিকদের ওপর এ ধরনের কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে কাজ করবে সরকার।' উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্যের যে চার শতাধিক ব্যক্তির ফোনে আড়িপাতা হয়েছে, সেই তালিকায় মঞ্জিলার নাম রয়েছে। পেগাসাসের মাধ্যমে বিশ্বের যে ১৪ জন রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানের ফোন আড়ি পাতার টার্গেটে পরিণত হয়, তাদের মধ্যে আছেন তিনজন বর্তমান প্রেসিডেন্ট, তিনজন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী, সাতজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও একজন বাদশাহ। তিন প্রেসিডেন্ট হলেন- ফ্রান্সের ইমানুয়েল মাক্রোন, দক্ষিণ আফ্রিকার রামাফোসা ও ইরাকের বারহাম সালিহ। এর মধ্যে ইমানুয়েল মাক্রোন তার ফোন বদলে ফেলেছেন। বর্তমান তিন প্রধানমন্ত্রী হলেন- পাকিস্তানের ইমরান খান, মিসরের মোস্তফা মাদবৌলি ও মরক্কোর সাদ এদ্দিন আল ওসমানি।

এদিকে, ইসরায়েল সরকার এনএসওর তৈরি পেগাসাস স্পাইওয়্যার দিয়ে দেশে দেশে আড়ি পাতার ঘটনা তদন্তে একটি কমিশন গঠন করেছে।

মন্তব্য করুন