যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চালু করা অভিবাসননীতি পুনর্বহালের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হলেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শুরু থেকেই ওই নীতির বিরুদ্ধে ছিলেন বাইডেন। ক্ষমতায় গিয়েই তা বাতিল করেন তিনি। তবে আদালত বাইডেনের ওই সিদ্ধান্ত বাতিল করে ওই নীতি পুনবর্হালের নির্দেশ দেন। এরপরই ওই নীতি বহালের পদক্ষেপ নেয় হোয়াইট হাউস। আগামী ৬ ডিসেম্বর বা এর কাছকাছি সময়ে ট্রাম্পের অভিবাসননীতি পুনর্বহাল করা হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। খবর এএফপি ও রয়টার্সের।

অভিবাসী ঢল থামানোর নাম করে অভিবাসী সুরক্ষা চুক্তি-এমপিপি নামে নীতি চালু করেন ট্রাম্প। সরকারি নাম এমপিপি হলেও ওটাকে রিমেইন ইন মেক্সিকো বা 'মেক্সিকোয় থাকো' কর্মসূচি বলতেন তিনি। ওই নীতি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়প্রার্থীদের আবেদন প্রক্রিয়াধীন অবস্থায় তাদের মেক্সিকোতে অপেক্ষা করতে হবে। মূলত যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের প্রবেশ সীমিত করতেই ওই নীতি করা হয়। সেই সময়ে ওই নীতি অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় চাওয়া মধ্য যুক্তরাষ্ট্রের লাখ লাখ ব্যক্তিকে মেক্সিকোয় পাঠিয়ে দেওয়া হয়। শুরু থেকেই এই কর্মসূচির বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন বাইডেন ও মানবাধিকারকর্মীরা।

নির্বাচনী প্রচারে এমপিপিকে অমানবিক আখ্যা দিয়ে তা পরে বাতিলের ঘোষণা দিয়েছিলেন এই ডেমোক্র্যাট নেতা। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরপরই কর্মসূচিটি বাতিলের উদ্যোগ নেন বাইডেন। জুনে প্রথা মেনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলেজান্দ্রো মায়োরকাস নীতিটি বাতিল করে দেন। তবে আগস্টে কেন্দ্রীয় আদালতে ট্রাম্পের নিয়োগ করা বিচারক ম্যাথু ক্যাকসমারিক রায় দেন, বাতিলের প্রক্রিয়াটি যথাযথ ছিল না। ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে বাইডেন প্রশাসন।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেন, 'প্রেসিডেন্ট তার অতীত অবস্থানে অটল রয়েছেন। তবে আমরা আইন অনুসরণেও বিশ্বাস করি।'

আদালতের সর্বশেষ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে হোয়াইট হাউস জানায়, এমপিপি কর্মসূচি পুনর্বহালের উদ্যোগ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষ।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন কাউন্সিল বলেছে, এটা যুক্তরাষ্ট্রের ও আইনের শাসনের জন্য একটি অন্ধকার দিন ছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি (ডিএইচএস) স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, আদালতের নির্দেশে আগামী ৬ ডিসেম্বর বা তার কাছাকাছি সময়ে ওই কর্মসূচি চালু করা হবে।

ডিএইচএস জানায়, 'মানবিক পরিস্থিতির কারণে এমপিপি কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্তদের গ্রহণ করতে মেক্সিকো চূড়ান্ত ও নিরপেক্ষ সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ওই নীতি বাস্তবায়নে প্রস্তুত হবে ডিএইচএস।'

বৃহস্পতিবার মেক্সিকো জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের আশ্রয় আদালতের তারিখের অপেক্ষায় থাকা মধ্য আমেরিকার নাগরিকদের নিজ দেশে পাঠানো হবে না। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, মানবিক কারণে অস্থায়ীভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেক্সিকো।

এমপিপি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর সর্বশেষ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে বিভিন্ন মানবাধিকার ও অভিবাসী সংস্থা। তারা বলছে, মেক্সিকোয় থাকো কর্মসূচি পুনর্বহাল করা হলে সীমান্তে শরণার্থী শিবিরগুলোতে অপরাধ ও সহিংসতা বাড়বে। অমানবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। এর আগেও মাসের পর মাস ধরে সেখানে অপেক্ষা করা আশ্রয়প্রার্থীরা প্রায়ই সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের শিকারে পরিণত হয়।

দাতব্য প্রতিষ্ঠান হিউমান রাইটস ফার্স্ট জানিয়েছে, মেক্সিকোয় পাঠিয়ে দেওয়া অভিবাসীদের ওপর এক হাজার ৫০০-এরও বেশি অপহরণ, ধর্ষণ, নির্যাতন এবং অন্যান্য নিপীড়নের ঘটনা নথিবদ্ধ রয়েছে। প্রকৃতপক্ষে এ তালিকা অনেক লম্বা।

মন্তব্য করুন