চাকরি নিয়ে

চাকরি নিয়ে


কভার লেটার লিখি

প্রকাশ: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

তন্ময় আলমগীর

কভার লেটার কেন এত গুরুত্বপূর্ণ

কভার লেটারের মাধ্যমে খুব সংক্ষেপে তুলে ধরা হয় আবেদনকারী সুনির্দিষ্ট কোন পোস্টের জন্য কেন যোগ্য। আরেকটি দিক হলো, কভার লেটার মূলত সম্পূর্ণ সিভির সারসংক্ষেপ। কভার লেটার পড়ার মাধ্যমে নিয়োগকর্তা আবেদনকারীর সব যোগ্যতা একদৃষ্টিতে দেখতে পারেন, যা আবেদনকারীর ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিতে তাকে উৎসাহিত করে।

কভার লেটার লেখার নানা নিয়ম

১. সহজ শব্দ ব্যবহার করুন

শব্দ বাহুল্য এবং ঝরঝরে গদ্যের ধরন সিভি বা কভার লেটারের জন্য প্রযোজ্য নয়। আপনার শব্দভাণ্ডার কতটা সমৃদ্ধ এবং কত উচ্চমার্গীয় শব্দ ব্যবহার করে আপনি মনের ভাব প্রকাশ করতে পারেন, তা প্রদর্শনের জায়গা সিভি বা তার কভার লেটার নয়। সিভির কভার লেটার লেখার সময় সবচেয়ে সহজ শব্দ ব্যবহার করে অকপটে নিজের মনের ভাব প্রকাশ করুন, যা নিয়োগকর্তার সঙ্গে আপনার যোগাযোগ সহজ করে দেবে। এমন শব্দ ব্যবহার করুন, যার মধ্য দিয়ে আপনার বিনয়ী, নম্রতা এবং প্রার্থিতা প্রকাশ পায়।

২. সহজ অক্ষর বিন্যাস ব্যবহার করুন

কভার লেটার লেখার ফরম্যাট অর্থাৎ অক্ষরবিন্যাস কী হবে, তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সব সময় চেষ্টা করুন সহজ অক্ষরবিন্যাস ব্যবহার করার। Time New Roman ফরম্যাটের অক্ষর সাইজ ১২ অন্যান্য সব ফরম্যাটের চেয়ে অধিক গ্রহণযোগ্য। বিশ্বব্যাপী সরকারি-বেসরকারি দপ্তরগুলোতে এটি বহুল ব্যবহূত। তা ছাড়া দুটি লাইনের মধ্যে যৌক্তিক ব্যবধান রাখুন। দুটি লাইনের মধ্যে স্পেস কখনও বেশি রাখবেন না, আবার দুটি লাইন এতটাই কাছাকাছি রাখবেন না, যেন পড়তে অসুবিধা হয়। কভার লেটারে বক্স বা ফ্রেম ব্যবহার না করাই উত্তম। কেননা সিভি জমা দেওয়ার পর আবেদন মূল্যায়নকারী অন্য ফরম্যাট ব্যবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রে বক্স ও ফ্রেম হারানোর সম্ভাবনা বেশি থাকে। সুতরাং বক্স বা ফ্রেম ব্যবহার করলে আপনার ফরম্যাটটি ভেঙেও যেতে পারে।

৩. সঠিক নিয়ম অনুসরণ করুন

বেশিরভাগ আবেদনকারী ইন্টারভিউ পর্যায় পর্যন্ত উন্নীত হতে ব্যর্থ হন শুধু মনোযোগের অভাবে। তারা সিভি এবং কভার লেটার মনোযোগ দিয়ে প্রস্তুত করেন না। সিভি এবং কভার লেটারের খুঁটিনাটি বিষয় পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে দেখতে হবে। কেননা এই মনোযোগের অভাবে সিংহভাগ আবেদনকারী আবেদনের পর কোম্পানির পক্ষ থেকে কোনো ফোনকল পান না। নিয়োগকর্তারা কোনো সিভির কভার লেটার যদি পিডিএফ ফরম্যাট বা ই-মেইলের বডিতে পান তবে তারা আবেদনকারীকে বাদ দেওয়ার আগে আবেদনকারীর কম্পিউটার সেন্স নিয়েও মনে মনে প্রশ্ন তোলেন! সুতরাং কভার লেটারের খুঁটিনাটি বিষয়ের দিকে নজর রাখুন। সব সময় চাকরিদাতার চোখ দিয়ে সবকিছু মূল্যায়ন করুন।