চারমাত্রা

চারমাত্রা

শহরে অন্যরকম ইশকুল

প্রকাশ: ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮

নূর ইসরাত জাহান

শহরে অন্যরকম ইশকুল

কর্মশালায় কথা বলছেন লেখক ও কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব

শিশুদের সৃজনশীল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ফোরসি তথা চাইল্ড সেন্ট্রিক ক্রিয়েটিভ সেন্টার। শিশুদের সৃজনশীলতার বিকাশে সংগঠনটি কাজ করছে ভিন্ন আঙ্গিকে। ইতিমধ্যে তারা আয়োজন করেছে বেশ কয়েকটি সৃজনশীল শিশুসাহিত্যের কর্মশালা। ৩০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হলো 'সায়েন্স ফিকশন' নিয়ে কর্মশালা। কর্মশালাটি হয় বাংলা পাজলের সহায়তায়। ঢাকার কারওয়ান বাজারে সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক তথা জনতা টাওয়ারে হয় এটি। বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৭টায় এ কর্মশালাটি ছিল প্রাণবন্ত। বিজ্ঞানবক্তা আসিফের আলোচনার আগে ফোরসির তরফে কথা বলেন মাহফুজুর রহমান মানিক। বিরতির পর আসিফ কসমিক ক্যালেন্ডার ও তার প্রাসঙ্গিক আলোচনা শেষ করে আহসান হাবীবকে ফ্লোর দেন।

অসাধারণ ভঙ্গিমায় অংশগ্রহণমূলক আকর্ষণীয় ও একটি কার্যকরী সেশন তিনি পরিচালনা করেন। তার কথা শেষে সার্টিফিকেট বিতরণী। এরপর গ্রুপ ছবি। ইতিমধ্যে কর্মশালার মধ্যমণি লেখক ও কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব হাজির হন। তার সঙ্গে সঙ্গে চলে প্রাণবন্ত এক সেশন। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় কর্মশালা শেষ হয় কিন্তু শেষ হয় না মিলনমেলা। সবক নেওয়ার পরও যেন অতৃপ্তি থেকে যায়। দুটি কর্মশালা শেষে সবাই প্রিয় লেখকদের সঙ্গে ছবি তোলায় ব্যস্ত হয়ে পড়ে। তারপর আস্তে আস্তে বিদায়। ফোরসি কর্মশালার মূল্যায়ন ফরমে দেখা যায়, অধিকাংশই ভালো আয়োজনের প্রশংসা করেন। অনেক কিছু শেখা ও জানার দুয়ার খুলে দেওয়ার জন্য ফোরসিকে ধন্যবাদ দেন। অনেকেই জিজ্ঞেস করেন, পরবর্তী কমর্শালা কবে হবে। বলাবাহুল্য, কর্মশালাগুলোতে এমন অনেকে ছিলেন যারা ফোরসির তিনটি কর্মশালায়ই অংশগ্রহণ করেন। অনেকে অংশগ্রহণ করেন দুটিতে। সৃজনশীলতার বিকাশে ফোরসি যেন শহরে এক নতুন স্কুল।