নন্দন

নন্দন

সুপারহিরো 'ব্ল্যাক প্যানথার'

প্রকাশ: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

শিহাবউদ্দিন শিশির

২০০৮ সালে 'আয়রনম্যান' মুক্তির মাধ্যমে মার্ভেল স্টুডিওর যাত্রা শুরু হয়। কমিকস বইয়ের সুপারহিরোদের নিয়ে এরপর ১৭টি ছবি প্রযোজনা করে স্টুডিওটি। কিন্তু মার্ভেল কমিকস এককভাবে যে কয়টি সুপারহিরো নিয়ে ছবি প্রযোজনা করেছিল, তার মধ্যে আফ্রিকান সুপারহিরো ব্ল্যাক প্যানথার সম্পূর্ণই অনুপস্থিত। মার্ভেল কমিকসের ছবি মানেই বাড়তি উত্তেজনা, অন্য ধরনের এক বিনোদন। চলচ্চিত্রপ্রেমীদের জন্য সুখবর, আগামীকাল মুক্তি পেতে যাচ্ছে এ বছরের প্রথম মার্ভেল কমিকসের ছবি ব্ল্যাক প্যানথার। মার্ভেলের জনপ্রিয় এ চরিত্র নিয়ে প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্র নির্মাণ করায় এটি নিয়ে এরই মধ্যে দর্শকদের মধ্যে তৈরি হয়েছে বাড়তি আগ্রহ। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ব্ল্যাক প্যানথার ছবিটির ট্রেইলারও অনেকটা তেমন আভাস দিচ্ছে। ব্ল্যাক প্যানথার নামে এ আফ্রিকান সুপারহিরোকে প্রথম দেখা গিয়েছিল 'ক্যাপ্টেন আমেরিকা :সিভিল ওয়ার' [২০১৬] ছবির পার্শ্বচরিত্রে। তখনই প্রথমবারের মতো 'ব্ল্যাক প্যানথার' [চ্যাডউইক বোসম্যান] এবং ওয়াকান্দান জনগণকে দেখতে পেয়েছিল দর্শক। এবার সেই 'ব্ল্যাক প্যানথার' এবং ওয়াকান্দান জনগণকে নিয়েই সিনেমা নির্মাণ করল মার্ভেল। কেভিন ফিগের প্রযোজনায় সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন রায়ান কোগলার। এতে আরও অভিনয় করছেন মাইকেল বি জর্ডান, লুপিতা নায়ং, মার্টিন ফ্রিম্যান, ড্যানিয়েল কুলুইয়া ও এন্ডি সারকিসসহ অনেকে। ব্ল্যাক প্যানথার চরিত্রে অভিনয় করেছেন চ্যাডউইক বোসম্যান। তাকে আফ্রিকার ওয়াকান্দা নামের একটি দেশের রাজপুত্র হিসেবে দেখানো হয়েছে। বাবা খুন হওয়ার পর তার ওপর নতুন দায়িত্ব পড়ে। ছবিতে ব্ল্যাক প্যানথার চরিত্রের পোশাকের ডিজাইন করা হয়েছে নেহিসি কোটসের লেখা ও ব্রায়ান স্টেলফ্রিজের আঁকা ব্ল্যাক প্যানথার আদলে। সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন জো রবার্ট। মজার বিষয় হলো- ব্ল্যাক প্যানথারের অস্তিত্ব মার্ভেলের কমিকস বইতে আগেই ছিল। ১৯৬৬ সালে ফ্যান্টাস্টিক ফোরের ৫২তম ইস্যুতে এসেছিলেন এ সুপারহিরো। কমিকসের গল্প লিখেছিলেন স্ট্যান লি ও এঁকেছিলেন জ্যাক কিরবি। এরপর মার্ভেলের অন্যান্য কমিকসেও তাকে দেখা যায়। দ্য অ্যাভেঞ্জারসের পঞ্চম ইস্যু শুধু তাকে নিয়েই প্রকাশ করা হয় এবং জাঙ্গল অ্যাকশন সিরিজেও তাকে দেখা যায়। এবার ব্ল্যাক প্যানথার রীতিমতো ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে। এই প্রথম মার্ভেল আফ্রিকান সুপারহিরো নিয়ে ছবি মুক্তি দিতে যাচ্ছে।

ছবিতে দেখা যাবে ভবিষ্যৎ পৃথিবীর আফ্রিকান রাজ্য ওয়াকান্দা। টি চালা [ব্ল্যাক প্যানথার] হলেন দুর্গম ওয়াকান্দা রাজ্যের উন্নত প্যান্থার উপজাতি গোষ্ঠীর রাজকুমার। এই উপজাতি প্রধানের আনুষ্ঠানিক উপাধি হলো 'ব্ল্যাক প্যানথার'। যা কি-না যোগ্যতম লোক হিসেবে টি চালা অর্জন করে নেন। তাদের রাজ্যে অনেক বছর আগে ভার্বেনিয়াম কম্পন বিশোষণ খনিজ [কাল্পনিক] তৈরি একটি উল্ক্কা বিধ্বস্ত হয়, এবং লোকচক্ষুর অন্তরালে অনাবিস্কৃত থাকে। টি চালার পিতা টি চাকা তৎকালীন উপজাতিপ্রধান সেই উল্ক্কাটি খুঁজে পান এবং এর কম্পন বিশোষণ শক্তি সম্পর্কে অবগত হন। তিনি সিদ্ধান্ত নেন যে, নিরাপত্তার স্বার্থ বাইরের জগৎ থেকে তার রাজ্য ওয়াকান্দাকে গোপন রাখবেন এবং মূল্যবান এই পর শক্তিকে রাজ্যের কল্যাণের জন্য ব্যয় করবেন। কিন্তু একদিন তার খবর পেয়ে যায় শত্রুপক্ষ এবং সেটি সংগ্রহের জন্য ওয়াকান্দা রাজ্য আক্রমণ করে। রাজ্য রক্ষায় টি চালার বাবা মারা যায়। এমতাবস্থায় বালক টি চালা ওই কম্পন যন্ত্র ব্যবহার করে প্রতিরোধ গড়ে তোলে এবং শত্রুদের বিতাড়িত করে। এতে মূল হামলাকারী ও ব্ল্যাক প্যানথারের প্রধান শত্রুর