নন্দন

নন্দন


পূর্ণদৈর্ঘ্যের স্বপ্ন

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৮      

একরামুল মোমেন

সন্ধ্যাবাতির সঙ্গে শ্রান্ত পথিকের ঘরে ফিরে যাওয়াটাই যেন নিত্যক্রিয়া। কিন্তু স্বপ্নবাজ মানুষেরা স্বপ্নের সঙ্গে বাস্তবের রঙ মিশিয়ে অবিশ্রান্ত ছুটে চলেন। এ পথ চলাতেই যেন আনন্দ। জীর্ণতাকে পেছনে ফেলে মেতে ওঠেন সৃষ্টি-সুখের উল্লাসে। গতানুগতিক প্লট, কাহিনীপ্রবাহ এবং বিষয়বস্তুর বৈচিত্র্যহীনতায় যখন আমরা ক্লান্ত, তখনই যেন আগমন ঘটে স্বপ্নবাজ তরুণ নির্মাতা ফারিদুল আহসান সৌরভের। তার কাজের অন্যতম দর্শন নির্মাণে নিপুণতা ও শৈলী খুব জরুরি নয়। এমনকি নির্মাতাকেও যে খুব ধৈর্যশীল হতে হবে তাও নয়। তার মতে চলচ্চিত্রের মুখ্য বিষয় নির্মাতার ভাবনার নিপুণতা। অস্থির সমাজকে স্তব্ধ করতে চাওয়াটাই যেন সৌরভের প্রতিটি কাজের লক্ষ্য। তার কাজের ধরন 'ডেড'স সার্কাস' যা তথাকথিত কোনো চলচ্চিত্র নয়। চলচ্চিত্র হিসেবে এটি সম্পূর্ণভাবে এক ধরনের নিরীক্ষামূলক একটি কাজ। যেখানে থাকে তাৎক্ষণিক কিছু নাটকীয়তা, বাকি পারফরম্যান্সগুলো ঘটতে থাকে আপনাআপনি। খুব আকস্মিক সিদ্ধান্তে চলচ্চিত্র নির্মাণে মাঠে নেমে পড়েন সৌরভ। কোন প্রি প্রোডাকশন ছিল না। এই ফিল্মের শুটিংয়ে সৌরভ 'অ্যাকশন' বা 'কাট' এই শব্দগুলো উচ্চারণ করেননি। তাই পূর্বপ্রস্তুতিহীন এ কাজটি যতটুকু না চলচ্চিত্র, তার চেয়ে অনেক বেশি পাবলিক পারফরম্যান্স ডকুমেন্টেশন। নতুন প্রজন্মের নির্মাতা সৌরভের নির্মাণে চাকচিক্য থাকে না। থাকে না সব আধুনিক প্রযুক্তির আহামরি ব্যবহার। সিনেমাটোগ্রাফি, এডিটিং, ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস- সবই প্রয়োজন সাপেক্ষে যথাযথ নয়। কোনো রকমের বাড়াবাড়ি প্রচেষ্টা যে তার থাকে না- তা নির্মাণশৈলীতে স্পষ্ট। আর এসবের অনুপ্রেরণা সৌরভের প্রিয় নির্মাতা আকিরা কুরোসায়া, আব্বাস কিয়ারোস্তামি, জাফর পানাহি। ভিন্নধর্মী শর্ট ফিল্ম দিয়ে তিনি জিতে নিয়েছেন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পুরস্কার। যার মধ্যে 'চেস', 'ডেড সার্কাস', 'স্ট্যান্ড পয়েন্ট', 'প্রতিভাস' উল্লেখযোগ্য। সম্প্রতি বিচারক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন কানাডার একটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির সিনে অ্যান্ড ড্রামা ক্লাব আয়োজিত ইন্টার ইউনিভার্সিটি শর্টফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৬-তে সেরা নির্বাচিত হয় সৌরভের নন-ফিকশন এক্সপেরিমেন্টাল ফিল্ম 'স্ট্যান্ড পয়েন্ট'। রোমানিয়ার টুয়েলভ মান্‌থ ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের জুলাই এডিশনে ৬৮টি দেশের ২৫৬টি ফিল্মের মধ্যে এক্সপেরিমেন্টাল ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান পায় স্ট্যান্ড পয়েন্ট। এ ছাড়া পুয়েবলা, মেপিকোর বিশ্ববিদ্যালয়ভিত্তিক ফেস্টিভ্যাল নিওফেস্টে অংশ নেয় চলচ্চিত্রটি। কানাডার ইন্ডিউইস ফিল্ম ফেস্ট ২০১৬-তে ডকু ফিকশন ক্যাটাগরিতে ফাইনালিস্ট ফিল্ম হয় সৌরভের 'ডেড সার্কাস'। বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের 'শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইআর) স্নাতকোত্তর করছেন তিনি। ভবিষ্যতে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে চান সেলুলয়েডের এ নতুন সেনানী। া