নন্দন

নন্দন


পাওলি কথন

প্রকাশ: ০৭ নভেম্বর ২০১৯      

সাদিয়া মুনমুন

পাওলি কথন

পাওলি দাম

সেদিন সন্ধ্যায় পাওলি এলেন পুরোপুরি রাজকীয় আমেজে। শাড়িতে আকর্ষণীয় এক রূপসীকে দেখা গেল গৌতম ঘোষের 'মনের মানুষ' ছবির পাওলিকে। বাইরের নিয়ন আলোয় শাড়ির ওপরের পুঁতিগুলো চিকচিক করছিল। মনে হচ্ছিল, আকাশের হাজারো তারা লেপ্টে আছে পাওলির শরীরে। আলো-ঝলমল ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড আয়োজনের আগেই কথা হয় কলকাতার শ্যাম সুন্দরীর সঙ্গে। শুরুতেই কমন প্রশ্ন- বাংলাদেশে প্রথম নয়, আগেও এসেছেন। কেমন লাগে বাংলাদেশ? পাওলির চিরচেনা উত্তর, 'বাংলাদেশ তো আমারই দেশ। শুধু কাঁটাতারের বেড়া মাঝে। আমার পূর্বপুরুষ তো এ দেশেরই। পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশকে আলাদা ভাবি না। ভাষা, সংস্কৃতি, মানুষ, ঘরে ফেরা- সবই তো একই। মনে হয় না, অন্য কোনো দেশে আছি।' রসায়নে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পেয়েও স্বপ্নেও ভাবেননি রসায়নের গবেষকের বদলে অভিনেত্রী হবেন। এমনকি পাইলট হয়ে আকাশে ওড়ারও প্রবল ইচ্ছা ছিল পাওলির।

কলকাতায় জন্ম ও বেড়ে ওঠা হলেও পাওলির পরিবার মূলত বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার। বাবা অমল দাম ও মা পাপিয়া দামের ইচ্ছা ও সহযোগিতায় পাওলি আজ একজন সফল অভিনেত্রী। ২০০৪ সালে পাওলি 'জীবন নিয়ে খেলা' ধারাবাহিক নাটকে কাজের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। এর পর 'তিথির অতিথি', 'সোনার হরিণ', 'চাঁদ উঠল', 'জয়া'সহ অনেক ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। বলা বাহুল্য, টিভিতে কাজের মাধ্যমেই তিনি অভিনয়ের খুঁটিনাটি শিখেছেন, যা তাকে পরবর্তীকালে সিনেমায় অভিনয়ে সহযোগিতা করেছে। ২০০৬ সালে রবি কিনাগীর 'অগ্নিপরীক্ষা'র মাধ্যমে পাওলির বড় পর্দায় অভিষেক। ২০০৬ থেকে ২০০৯ তিনি পাঁচটি বাংলা সিনেমায় অভিনয় করেন। এগুলোর মধ্যে গৌতম ঘোষের 'কালবেলা' ছিল অন্যতম। এ ছবির কল্যাণে ২০০৯ সালে পাওলি দাম স্টার আনন্দ সেরা বাঙালি অভিনেত্রী হিসেবে পুরস্কার পান।

২০১১ সালে 'ছত্রাক' ছবিতে তার অসাধারণ ভূমিকার জন্য তিনি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করেন। ছবিটি সে বছর কান চলচ্চিত্র উৎসব ও টরন্টো চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। ঋতুপর্ণ ঘোষের 'সব চরিত্র কাল্পনিক', গৌতম ঘোষের 'মনের মানুষ' সিনেমায় পাওলির দারুণ অভিনয় কখনও ভোলা যাবে না। পাওলি ২০১২ সালে বিবেক অগ্নিহোত্রির 'হেট স্টোরি'র মাধ্যমে বলিউডের চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন। এ ছাড়া তিনি বিক্রম ভাটের 'অংকুর অরোরা মার্ডার কেস' ছবিতেও দারুণ অভিনয় করেছেন।

পাওলি গান খুব ভালোবাসেন। সেভাবে শেখা না হলেও সুযোগ পেলেই গান শোনেন। 'নাটকের মত' চলচ্চিত্রে নিজের কণ্ঠে গেয়েছেন 'আমি যখন মেয়ে থাকি'। এ ছাড়া 'কালবেলা' ছবিতে প্লেব্যাকও করেছেন। পাওলি শাকিব খানের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন হাসিবুর রেজা কল্লোলের 'সত্তা' চলচ্চিত্রে। এদেশের দর্শকদের কাছেও দারুণ জনপ্রিয় পাওলি, যা বোঝা গেছে 'সত্তা' মুক্তির পরই। ফলে বলা যায় পাওলির জীবনের বৃহস্পতিও খুব জ্বলজ্বল করছে। তিনি বলেন, 'মানসিকভাবে আমি এখন খুব হ্যাপি।' ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডেও প্রথমবারের এ আয়োজনে শিব প্রসাদ মুখোপাধ্যায় আর নন্দিতা রায়ের 'কণ্ঠ' ছবিতে অভিনয়ের জন্য পেয়েছেন সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার। ছবিতে দারুণ একটি চরিত্রে বাংলাদেশের জয়া আহসানও অভিনয় করেছেন। কলকাতায় মুক্তির পর ছবিটি দারুণ গ্রহণ করেন দর্শক। এবার আগামীকাল থেকে বাংলাদেশেও মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।