নন্দন

নন্দন


সিনেমার মহাপ্রাণ

প্রকাশ: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০      

ববিতা

সিনেমার মহাপ্রাণ

কেএম জাহাঙ্গীর খান [জন্ম :২১ এপ্রিল ১৯৩৯-মৃত্যু ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০]

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন মুভিমোগল খ্যাত পরিচালক কেএম জাহাঙ্গীর খান। বাংলা চলচ্চিত্রের এই প্রযোজকের প্রতি নন্দনের শ্রদ্ধাঞ্জলি। তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করলেন তার সহকর্মী-

জাহাঙ্গীর ভাই নেই- খবরটি এখনও মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। তিনি একজন দিলখোলা মানুষ ছিলেন। এ কথা সর্বজন স্বীকৃত। তার পরিবেশনায় 'মা' ছবিতে প্রথম অভিনয় করি। পরে তিনি এ ছবির অন্যতম একজন প্রযোজক হন। তার প্রযোজিত 'নয়নমনি'সহ অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছি। মনে আছে মানিকগঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নয়নমনির শুটিং করতে হয়েছে। শিল্পীদের কীভাবে সম্মান দিতে হয় তা জাহাঙ্গীর ভাই দেখিয়ে দিয়েছেন। আউটডোর শুটিং হলেও আমাদের মনে হয়েছে ঢাকায় বসে শুটিং করছি। আদর-আপ্যায়ন আর সব সুযোগ-সুবিধা দিয়েছেন। তখনই মনে হয়েছে চলচ্চিত্র শিল্প একটা জাত প্রযোজক পেয়েছে। বড় আত্মার মানুষ ছিলেন তিনি। ব্যক্তিগত জীবনে জাহাঙ্গীর খান একেবারে বন্ধুসুলভ একজন মানুষ ছিলেন। কোনো অহংকার বা রাখঢাক তার মধ্যে দেখিনি। ইনডোর কিংবা আউটডোর যেখানে শুটিং থাক, তিনি যা খান তাই নিয়ে আসতেন আমাদের জন্য। ভাবিকেও দেখেছি উদার একজন মানুষ হিসেবে। আমাদের চলচ্চিত্রের সব ঐতিহ্য এখন অতীত। ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই নিয়েছে। মানুষে মানুষে সম্পর্কটা আজ কেবলই স্মৃতিবহন করে বয়ে চলেছে। চলচ্চিত্রের স্বর্ণালি যুগে জাহাঙ্গীর ভাই দাপটের সঙ্গে ছবি প্রযোজনা করেছেন। নয়নমনির শুটিংয়ে মাঝে মাঝে জাহাঙ্গীর ভাইয়ের সঙ্গে আসতেন ভাবি। সুন্দরী সুশ্রী, বেশ গুছিয়ে কথা বলতেন। তাদের পারিবারিক জীবনসংক্রান্ত অনেক কিছু আলাপ হতো। শুটিং চলাকালীন আমরা দুই পরিবার এক হয়ে যেতাম। সত্যি বলতে, কোনো অনুষ্ঠানে দেখা হলে আমরা জাহাঙ্গীর ভাইয়ের পরিবার এবং ছেলেমেয়ের খবরাখবর নিতাম, তেমনি জাহাঙ্গীর ভাইও আমাদের তিন বোনের খবরাখবর নিতেন।

ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক প্রযোজক আছেন। কিন্তু তাকে সহজে আলাদা করা যায়। চলচ্চিত্রের অন্তঃপ্রাণ মানুষটি তাই মুভি মোগল উপাধি পেয়েছিলেন। শুধু প্রযোজনা করেই তার দায়িত্ব শেষ করেননি- স্ট্ক্রিপ্ট, ছবিতে কে অভিনয় করছেন, কার চরিত্র কী রকম- সব বিষয়ে তিনি খোঁজ নিতেন। মনেপ্রাণে তিনি চাইতেন চলচ্চিত্রের উন্নতি। এ কারণে সব সময় তিনি বড় বাজেটের তারকাবহুল ছবি বানাতেন। তার অসংখ্য ছবি পুরস্কৃত হয়েছে। শুধু শিল্পীদের প্রতি নয়, চলচ্চিত্রের সঙ্গে সংশ্নিষ্ট সবার সঙ্গেই অমায়িক ব্যবহার করতেন। সবশেষে সৃষ্টিকর্তার কাছে এ প্রিয় মানুষটির জন্য অনেক অনেক দোয়া কামানা করছি।