নন্দন

নন্দন

ঊর্মিলার সময়

প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

এমদাদুল হক মিলটন

ঊর্মিলার সময়

ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর

ছোটবেলা থেকেই দুরন্ত স্বভাব ছিল মেয়েটির। হৈ-হুল্লোড় আর হাসি-ঠাট্টায় সবাইকে মাতিয়ে রাখতে জুড়ি নেই। মনের গহিনে খেলা করত কল্পনার নানা রং। স্বপ্ন ছিল তার আকাশছোঁয়া। সেদিনের সেই ছোট্ট মেয়েটি ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর। এতদিন যে স্বপ্ন বুনেছেন, সেই স্বপ্নেরই দেখা পেয়েছেন তিনি। বর্তমান প্রজন্মের যারা ছোটপর্দায় নিয়মিত কাজ করছেন, তাদের মধ্যে ঊর্মিলা অন্যতম। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে সাবলীল অভিনয় দিয়ে দর্শকদের হৃদয় জয় করেছেন তিনি। শুধু অভিনয় নয়, চেহারায় বুদ্ধিদীপ্ত শৈল্পিক অভিব্যক্তি তাকে আরও আকর্ষণীয় করেছে। ব্যতিক্রমী ও সাহসী চরিত্রে নির্মাতাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে ঊর্মিলার নাম। অভিনেত্রী হিসেবে খ্যাতি অর্জন করলেও বাস্তব জীবনে আগের মতোই হাসিখুশি আড্ডাবাজ ঊর্মিলা। বন্ধুদের সঙ্গে প্রাণখোলা আড্ডায় ঊর্মিলা হয়ে ওঠেন খুব পরিচিত কাছের একজন। ক্যারিয়ারের এক দশক পূর্ণ করতে চলেছেন তিনি। এই পথচলা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্মৃতির আকাশপানে দৃষ্টি মেলেন এই অভিনেত্রী। তিনি বলেন, 'এই তো সেদিনের কথা। লাক্স-চ্যানেল আইয়ের মঞ্চে ওঠার সুখস্মৃতি এখনও চোখে ভাসছে।

আলো ঝলমলে মঞ্চে নিজেকে প্রকাশ করা, অতিথিদের সামনে কথা বলা- সবই যেন অন্যরকম আলোকময় স্মৃতি। সেই যে যাত্রা শুরু হলো এখনও পথ চলছি। প্রতিনিয়ত ভালো কাজের সন্ধানে নিয়োজিত রেখেছি। সবসময় নিজেকে ভাঙার চেষ্টা করেছি। অভিনয় দিয়ে কতটুকু জয় করতে পেরেছি দর্শকই তা ভালো বলতে পারবেন। তবে এটুকু বলতে পারি, দর্শক সব সময় ভালো কাজের সঙ্গে থাকেন।' ঊর্মিলা কথাগুলো যে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেছেন তার প্রমাণ মেলে 'জটিল প্রেম' 'মেহমান' 'চলো সবাই ডায়েট করি' 'সোনার শিকল' 'মানিব্যাগ' 'চিরকুট' 'বৌ কিডন্যাপ' 'ভালোবাসার ইতিবৃত্ত' 'সার্কেল' 'একজন মিমির গল্প' 'তাইলে সেই কথাই রইলো'সহ অনেক নাটকের দিকে দৃষ্টি ফেরালে। করোনার এই সময়েও অভিনয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ঊর্মিলা। সম্প্রতি তিনি অভিনয় করেছেন মনির হোসেনের 'শোপিস জামাই' নাটকে। এখানে তাকে দেখা যাবে 'নায়লা' নামে গ্রামের এক প্রতিবাদী নারীর চরিত্রে। এ ছাড়া অভিনয় করেছেন চয়নিকা চৌধুরীর 'বিশ্বভরা প্রাণ', আনিসুর রহমান রাজুর 'সময়ের গল্প'সহ বেশ কয়েকটি নাটকে। করোনাকালে সময় কাটছে কী করে? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, 'করোনাভীতি কাটিয়ে অনেক আগেই কাজে নেমেছি। কাজের ফাঁকে যেটুকু সময় পাচ্ছি পরিবারের সঙ্গে কাটাতে চেষ্টা করি। মায়ের সেবায় সময় দিতে হয়। করোনায় পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজও বেড়েছে। রাঁধতে পছন্দ করি। শুটিং না থাকলে রান্নাবান্নায় মনোযোগ দিই। সেই এসএসসি পরীক্ষার পর করোনাকালেই এমন লম্বা সময় হাতে পেয়েছি! বুক শেলফ থেকে বই বের করে পড়ছি। টিভি দেখার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নিজেকে ডুবিয়ে রাখি।'

টিভি নাটকের পাশাপাশি সিনেমায়ও অভিনয় করছেন তিনি। সম্প্রতি 'ফ্রম বাংলাদেশ' নামে একটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন এই অভিনেত্রী। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট নিয়ে এটি নির্মাণ করছেন পরিচালক শাহনেওয়াজ কাকলী। এতে ফেরদৌসী মজুমদারের ছেলের বউয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঊর্মিলা। 'নতুন ভুবনে' কাজ শুরু করেছেন। সিনেমায় কি নিয়মিত আপনাকে দেখা যাবে?

-'দেখুন, আমি এমন একটি সিনেমা দিয়ে এ মাধ্যমে কাজ শুরু করতে চেয়েছি, যেখানে স্বাচ্ছন্দ্য পাব। তেমনই একটি সিনেমা 'ফ্রম বাংলাদেশ'। সামনে আরও একটি সিনেমায় অভিনয় করার কথা রয়েছে। টিভি নাটকের পাশাপাশি সিনেমার দিকে মনোযোগ দিয়েছি। আমাদের চলচ্চিত্রে বেশ পরিবর্তন আসছে। গল্পেও নতুনত্ব থাকছে। আশা করছি টিভি নাটকের মতো সিনেমায়ও ভালো কিছু করতে পারব। অনেক বাণিজ্যিক সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছি। সবই 'না' করতে হয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে বিকল্প ঘরানার সিনেমাগুলোই করতে চেয়েছি। এ রকম ছবি পেলে নিয়মিত অভিনয় করব।'- বললেন ঊর্মিলা।