প্যাচআল

প্যাচআল

স্বপ্রণোদিত হয়ে আপনি যা করতে পারেন

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৯

মুহাম্মদ শফিকুর রহমান

আজকাল অনেক কিছুই স্বপ্রণোদিত হচ্ছে। স্বপ্রণোদিত আপনিও হতে পারেন। লাভ-লস দুটোই আছে।

যেমন ধরুন, রাতে মশারি টানানো নিয়ে ব্যাপক গণ্ডগোল। দু'জন দু'জনার গোষ্ঠী উদ্ধার করেন। কেউ বলুক বা নাই বলুক। স্বপ্রণোদিত হয়ে মশারি টানিয়ে দিন। মশা নিয়ে কত কিছুই না হচ্ছে। মশার ওষুধ কিনুন। স্বপ্রণোদিত হয়ে প্রেমিকার বাড়ির আশপাশে ছিটিয়ে দিন। ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার করতে নেমে যান স্বপ্রণোদিত হয়েই।

স্বপ্রণোদিত হলে ক্ষতি নেই। ব্যাংকে টাকা-পয়সা জমিয়ে কী হবে? টাকা তুলে গরিবদের দিয়ে দিন। স্বপ্রণোদিত হয়ে মানুষ আপনাকে ভালোবাসবে। মানুষের ভালোবাসা পাবেন। মাথায় না হোক, কিছু মানুষ আপনাকে কোলে তুলে নাচবে। মাছ- মাংসের যা দাম। স্বপ্রণোদিত হয়ে মাছ-মাংস খাওয়া ছেড়ে দেন। নিরামিষভোজী হতে পারেন। কাউকে ভালো লাগে। স্বপ্রণোদিত হয়ে প্রেম নিবেদন করুন। চড়-থাপ্পড় স্বপ্রণোদিত হয়ে সে দিতে পারে। সহ্য করে নিন। পাশের বাসায় ভাবিকে ভালো লাগে। স্বপ্রণোদিত হয়ে বলে ফেলুন। অবশ্য ভাই জানলে কী হবে বুঝতেই পারছেন। ভাবিকে প্রেমপত্র দিলেন। ভাবি তা স্বপ্রণোদিত হয়ে ভাইকে দিয়ে দিল। আপনার উল্টাপাল্টা ছবি কম্পিউটারে ভরা। হঠাৎ ভাইয়ের শ্যালিকা তা দেখে ফেলল। স্বপ্রণোদিত হয়ে তা অন্যদের ডেকে দেখিয়ে দিন। সব স্বপ্রণোদিত হওয়ার ফল। স্বপ্রণোদিত হয়ে ইন্টারনেটে তা ছড়িয়েও দিতে পারে। বাজার তো বাবাই করে। স্বপ্রণোদিত হয়ে বাজার করে দিতে পারেন। যদিও মাছটা পচা হতে পারে। কারণ মাছওয়ালা স্বপ্রণোদিত হয়ে আপনাকে পচা মাছ ধরিয়ে দিয়েছে। স্বপ্রণোদিত হওয়া ভালো, আবার মন্দও। সব ক্ষেত্রে স্বপ্রণোদিত হওয়া যায় না। যেখানে দরকার সেখানেই হতে হবে। যতটুকু দরকার, ততটুকু হতে হবে। স্বপ্রণোদিত হয়ে এই লেখাটা অন্যকে পড়তে দিতে পারেন। না দিলেও ক্ষতি নেই।



হ বানারীপাড়া, বরিশাল